বিশ্ব সংবাদ

এবার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভোটারদের মামলা

শেয়ার বিজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল অনুমোদনে বারবার বাধা দেওয়ায় ওয়াশিংটন ডিসির ফেডারেল জেলা আদালতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ২০ নভেম্বর মিশিগান রাজ্যের ডেট্রয়েট শহরের একটি সংগঠন ও তিন ভোটার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এ মামলাটি করেছেন। এদিকে নির্বাচনের ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্য পেনসিলভানিয়ায় ডাকযোগে আসা লাখ লাখ ভোট বাতিলের দাবিতে ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের করা মামলা খারিজ করে দিয়েছেন একটি ফেডারেল আদালত। শুধু তাই নয়, বিচারকের তীব্র ভর্ৎসনার শিকার হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। তার মামলার দাবিকে ‘ফ্রাংকেনস্টাইনের দানব’ হিসেবে বলেছেন আদালত। খবর: বিবিসি ও রয়টার্স।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলার নথি থেকে জানা গেছে, মিশিগান ওয়েলফেয়ার রাইটস অরগানাইজেশন নামে একটি সংগঠন ও তিন ব্যক্তি ওই মামলা করেছেন। মামলায় তারা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মিশিগানে নির্বাচনের ফল অনুমোদনে বাধা দেওয়ায় এবং আইনপ্রণেতাদের চাপ দেওয়া থেকে ট্রাম্পকে বিরত থাকতে আদালতকে আদেশ দিতে অনুরোধ করেছেন।

এছাড়া কৃষ্ণাঙ্গ ভোটারদের বঞ্চিত করা, বিশেষ করে ওয়েইন কাউন্টির ভোটারদের বঞ্চিত করার অপচেষ্টা করা হচ্ছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়। মামলায় দাবি করা হয়, ট্রাম্প ১৯৬৫ সালের ভোটাধিকার আইনের ১১(বি) ধারা লঙ্ঘন করেছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মিশিগানের ভোটের ফল অনুমোদনে তার দল, রাজ্য ও স্থানীয় কর্মকর্তাদের চাপ দিচ্ছেন।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, ট্রাম্প ও তার সহযোগীরা মূলত কৃষ্ণাঙ্গ অধ্যুষিত শহরগুলোকে টার্গেট করে ভোটে জালিয়াতির মিথ্যা অভিযোগ বারবার করছেন এবং এসব অভিযোগ আদালত থেকে খারিজ হয়ে যাচ্ছে।

এদিকে ২১ নভেম্বর মিশিগানের নির্বাচনের ফল অনুমোদনে বাধা দেওয়ার অংশ হিসেবে রিপাবলিকান ন্যাশনাল কমিটির চেয়ারম্যান রনা ম্যাকডানিয়েল ও মিশিগান রিপাবলিকান পার্টির চেয়ারম্যান লরা কক্স একটি যৌথ চিঠিতে মিশিগান বোর্ড অব ক্যানভাসারদের একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, মিশিগানের ভোটের ফল অনুমোদন দুই সপ্তাহ বিলম্ব করে যেন রাজ্যের ভোট নিরীক্ষা করা হয়। মিশিগান সেক্রেটারি অব স্টেটের মতে, ‘বোর্ড ভোটের ফলাফল সরকারিভাবে অনুমোদনের আগে নিরীক্ষা করতে পারবে না।’

মিশিগান সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের রিপাবলিকান নেতা মাইক শিরকি ও হাউস স্পিকার লি চ্যাটফিল্ড ২০ নভেম্বর হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এ বৈঠকে মিশিগানে নির্বাচনের ফলাফল এবং এ নিয়ে পরবর্তী কার্যক্রম কী হবে, তা আলোচনা হয়েছে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন।

২৩ নভেম্বর কাউন্টির ভোটের ফল যাচাই করে আলোচনার মাধ্যমে পুরো রাজ্যের নির্বাচনী ফল অনুমোদন করার কথা রয়েছে মিশিগানের দুই রিপাবলিকান ও দুই ডেমোক্র্যাট সমন্বিত বোর্ড অব স্টেট ক্যানভাসার্সের।

এদিকে ট্রাম্প শিবির পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে ভোটের ফলাফল ‘সার্টিফাই’ করার ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে ম্যাথিউ ব্র্যানের আদালতে গিয়েছিল। আজ সোমবার পেনসিলভানিয়ার ফলাফল ‘সার্টিফাই’ করার কথা অঙ্গরাজ্যের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের। পেনসিলভানিয়ার উইলিয়াম স্পোর্টের ডিস্ট্রিক্ট জজ ম্যাথিউ ব্র্যান গত শনিবার ভোট নিয়ে ট্রাম্পের মামলা খারিজ করে দেন। তিনি বিচারক হন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার মনোনয়নে। ট্রাম্প শিবিরের মামলার রায়ে ম্যাথিউ ব্র্যান বলেন, একজন নাগরিকেরও ভোটাধিকার হরণ করার কোনো অধিকার তার নেই।

৯ নভেম্বর ম্যাথিউ ব্র্যানের আদালতে মামলাটি করা হয়। মামলায় ভোট নিয়ে নানা অভিযোগ আনে ট্রাম্প শিবির। বিচারক ম্যাথিউ ব্র্যান তার রায়ে লিখেছেন, মামলায় ট্রাম্প শিবির যেসব দাবি করেছে, তা ফ্রাংকেনস্টাইনের দানবের মতো। তিনি ট্রাম্প শিবিরের মামলাকে ‘ভিত্তিহীন’ ও ‘অনুমানমূলক’ অভিযোগ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। ট্রাম্পের আইনজীবী রুডি জুলিয়ানি এক বিবৃতিতে বলেন, এই রায়ে তিনি হতাশ। তারা সুপ্রিম কোর্টে যাবেন।

ট্রাম্পের মামলা আদালতে খারিজ হয়ে যাওয়ায় এ রাজ্যে বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ী ঘোষণা করতে আর বাধা থাকল না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে পুরো দেশে ৫৩৮টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের অন্তত ২৭০টি পেতে হয়। এর মধ্যে ২০ ইলেকটোরাল ভোটের রাজ্য পেনসিলভানিয়ায় জয় নিশ্চিত হওয়ায় গত ৭ নভেম্বর বাইডেনের হোয়াইট হাউস নিশ্চিত হয়ে যায়।  সব রাজ্যের ভোট গণনা শেষে বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬ ইলেকটোরাল ভোট, আর ২৩২ ইলেকটোরাল ভোট ট্রাম্পের পক্ষে গেছে। নির্বাচনে হার স্বীকার করতে নারাজ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ভোট জালিয়াতির অভিযোগ করে এলেও কোনো প্রমাণ তিনি দেখাতে পারেননি।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে ভোটের চিত্র দেখেই পরাজিত প্রার্থীরা হার স্বীকার করে নেন এবং বিজয়ী প্রার্থী সরকার গঠনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। বহু বছর ধরে এই রেওয়াজ চলে আসছে। কিন্তু ট্রাম্প তা না করায় সেই প্রক্রিয়া বিলম্বিত হচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..