দিনের খবর প্রচ্ছদ শেষ পাতা

এবার ভারত সফর বাতিল করলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠেয় এক সম্মেলনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। আগামী ১৩-১৪ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এতে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক সম্মেলন রাইসিনা সংলাপে আমন্ত্রিত ছিলেন প্রতিমন্ত্রী। শেষ মুহূর্তে এ সফর বাতিল করা হলো। অবশ্য এ সময়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী হিসেবে আরব আমিরাত যাচ্ছেন।

জানা গেছে, ভারতের নাগরিকত্ব (সংশোধন) আইন (সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে বিতর্ক তৈরির পর এ নিয়ে বাংলাদেশের চার মন্ত্রীর ভারত সফর বাতিল হলো। সফর বাতিল করা হলেও সরকারের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানানো হয়নি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চার দিনের সরকারি সফরে সংযুক্ত আরব আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সফরেই মধ্যপ্রাচ্যের দূতদের আগামী দিনের করণীয় বিষয়ে নির্দেশনা দিতে ১৩ জানুয়ারি দূত সম্মেলন হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে, গত ডিসেম্বর মাসে পূর্বনির্ধারিত ভারত সফর বাতিল করা হয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের। এর এর এক সপ্তাহ পরই দুই দেশের নদী কমিশনের বৈঠকও বাতিল হয়।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে শীতল উত্তেজনা চলছে ভারতের। এটি তীব্র আকার ধারণ করে বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ’র এক বক্তব্যে। তিনি বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘুদের প্রতি অবহেলার অভিযোগ এনেছেন।

অমিত শাহ’র মন্তব্যে বিতর্ক সৃষ্টির পরে অবশ্য ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বিষয়টি স্পষ্ট করে বলা হয় যে, বিগত সরকার ও সামরিক শাসনের অপব্যবহারের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি ওই মন্তব্য করেন। এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে শুধু বিজিবি ও বিএসএফ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাকি সব বৈঠকেই বাংলাদেশ সরকার অংশগ্রহণ করেনি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ভারতের অভ্যন্তরীণ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ। পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার অপেক্ষা করা হচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..