বিশ্ব সংবাদ

এবার ৯ হাজার কর্মী ছাঁটাই করছে এমিরেটস

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে বিশাল আর্থিক ক্ষতির কারণে বিভিন্ন এয়ারলাইনস ব্যাপকহারে কর্মী ছাঁটাই করছে। এবার এতে যোগ দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এমিরেটস। এয়ারলাইনসটি ৯ হাজার কর্মীকে ছাঁটায়ের ঘোষণা দিয়েছে। খবর: বিবিসি।

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি দূরত্বে নিজেদের ফ্লাইট পরিচালনাকারী এ প্রতিষ্ঠানটি প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে জানাল, তাদের কোম্পানিতে কাজ করা কতজন কর্মীকে ছাঁটাই করা হচ্ছে। মহামারি শুরু হওয়ার আগে এমিরেটসের মোট ৬০ হাজার কর্মী ছিল।

এমিরেটসের প্রেসিডেন্ট স্যার টিম ক্লার্ক জানিয়েছেন, তাদের এয়ারলাইনসে এরই মধ্যে মোট কর্মীর ১০ শতাংশকে ছাঁটাই করেছে। তবে তিনি বলছেন, ‘আমাদের সম্ভবত আরও কিছু লোককে ছাঁটাই করতে হবে, সম্ভবত এ সংখ্যাটা মোট কর্মীর ১৫ শতাংশ পর্যন্ত।’

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত খাতগুলোর একটি হলো বিমান চলাচল। কেননা বেশিরভাগ বিমান সংস্থাকে তাদের ফ্লাইট বন্ধ রাখতে হয়েছে। বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে টিম ক্লার্ক বলেছেন, ‘অন্যদের (অন্যান্য এয়ারলাইনস) যতটা বাজে অবস্থা হয়েছে, আমাদের ঠিক ততটা হয়নি।’

বিশ্বের ২৯০টি বিমান পরিবহন সংস্থার প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন (আইএটিএ) পূর্বাভাস দিয়েছে যে, চলতি বছর বিশ্বের এয়ারলাইনসগুলো আট হাজার ৪০০ কোটি ডলারের বেশি ক্ষতির মুখে পড়বে। এ খাতে চাকরি হারাবে অন্তত ১০ লাখ কর্মী।

চলতি সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের বৃহৎ তিনটি বিমান সংস্থার একটি ইউনাইটেড এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ তাদের কর্মীদের সতর্ক করে বলেছে, আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের চাহিদা বিরাট হ্রাস পাওয়ায় কোম্পানির ৩৬ হাজার কর্মীকে ছাঁটাই করা হতে পারে। এ রকম আরও অনেক এয়ারলাইনসে ছাঁটাই কার্যক্রমের খবর পাওয়া যাচ্ছে প্রতিদিন। জার্মানির লুফথানসা পূর্ণ সময়ের ২২ হাজার কর্মীকে ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দিয়েছে। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ ১২ হাজার কর্মী ছাঁটাই করার কথা জানিয়েছে।

ছাঁটাইয়ের কারণ হিসেবে লুফথানসার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সাম্প্রতিক ভবিষ্যতে বিমান পরিবহনের চাহিদা আশানুরূপ হওয়ার সম্ভাবনা নেই। সে কারণেই এ সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটিকে। সংকটজনক পরিস্থিতিতে লুফথানসা ১০০টি উড়ান কম চালাবে বলে জানানো হয়েছে। তার জন্যই সংস্থার পূর্ণ সময়ের ২২ হাজার কর্মীকে সরাতে হচ্ছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তাদের মধ্যে অর্ধেক কর্মী জার্মানির। লুফথানসা গ্রুপের মোট এক হাজার ৩৫ হাজার কর্মীর মধ্যে ১৬ শতাংশকে ছাঁটাই করা হচ্ছে।

ইউরোপের বৃহৎ বিমান পরিবহন সংস্থাটি ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের মালিকানা  প্রতিষ্ঠান আইএজি গত ৩০ এপ্রিল ১২ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দিয়েছে। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পক্ষ থেকে কর্মচারী ইউনিয়নকেও চিঠি দেওয়া হয়। তাতে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে কোম্পানি পুনর্গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

আইএজি স্প্যানিশ এয়ারলাইনস আইবেরিয়ারও পরিচালনা করে আসছে। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, করোনার প্রভাবে প্রথম প্রান্তিকে তাদের আয় কমেছে ১৩ শতাংশ। দ্বিতীয় প্রান্তিকে আরও বেশি লোকসানের পূর্বাভাস দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ব্রিটিশ এয়ারের প্রধান নির্বাহী এলেক্স ক্রুজ বলেন, ‘হিথ্রো থেকে দিনে যেখানে ৩০০ ফ্লাইট পরিচালনা করেছি, সেখানে বর্তমান পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে পুনর্গঠনের বিকল্প নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘সরকারের কাছ থেকে যে পরিমাণ অর্থই আমরা ধার করি না কেন, ব্যবসায় পূর্বাভাস অনুযায়ী সংকট মোকাবিলা সত্যিই কঠিন।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..