Print Date & Time : 2 July 2022 Saturday 11:07 am

এমারেল্ড অয়েলের শেয়ারদর ১১.১১% কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: সমাপ্ত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দর কমার শীর্ষে ছিল খাদ্য ও প্রকৌশল খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানি এমারেল্ড অয়েল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। সপ্তাহের ব্যবধানে কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ১১ দশমিক ১১ শতাংশ।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে দুই কোটি ছয় লাখ ৩৫ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে কোম্পানির ১০ কোটি ৩১ লাখ ৭৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। উল্লেখ্য, কোম্পানিটি ২০১৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সময় কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে তিন টাকা ৩৩ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ২৩ পয়সা। আগের বছর ছিল যথাক্রমে দুই টাকা ৮২ পয়সা ও ১৬ টাকা ২৯ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য ৩১ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় রাজধানীর আইডিইবি ভবনের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি মিলনায়তনে (১৬০/এ কাকরাইল ভিআইপি রোড) বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ ডিসেম্বর। গত বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির শেয়ারদর আগের দিনের চেয়ে এক দশমিক ৮৪ শতাংশ বা ৬০ পয়সা  কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৩২ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ৩২ টাকা। দিনজুড়ে পাঁচ লাখ ৬৭ হাজার ২৫৫টি শেয়ার ৮২৩ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৮২ লাখ ৬৮ হাজার টাকা। শেয়ারদর সর্বনি¤œ ৩১ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৩২ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩০ টাকা ৩০ পয়সা থেকে ৮০ টাকা ৬০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৫৪ কোটি ২৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২৬ কোটি ১২ লাখ টাকা। ২০১৫ সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ১০ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সময় কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে তিন টাকা ১০ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ২৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল যথাক্রমে দুই টাকা ৩৯ পয়সা ও ১৪ টাকা ২৬ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করছে ১৫ কোটি ২৮ লাখ ২০ হাজার টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল আট কোটি ৩৫ লাখ ১০ হাজার টাকা। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ইপিএস হয়েছে তিন পয়সা, যা এর আগের বছর একই সময়ে এক টাকা ১২ পয়সা ছিল।