বিশ্ব সংবাদ

এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অপুষ্টি বাড়াবে করোনা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে প্রায় ২০০ কোটি মানুষের খাদ্য ও পুষ্টিমান উন্নয়নের প্রচেষ্টাকে ঝুঁকিতে ফেলছে কভিড-১৯। জাতিসংঘের চারটি বিশেষায়িত সংস্থার প্রকাশ করা নতুন এক প্রতিবেদনে এ চিত্র উঠে এসেছে। গতকাল বুধবার  ইউনিসেফের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি ২০২০-এর এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় আঞ্চলিক সংক্ষিপ্তসার : পুষ্টিমান উন্নয়নের কেন্দ্রে মা ও শিশুদের খাদ্য শীর্ষক প্রতিবেদনটি ব্যাংককে প্রকাশ করা হয়েছে। যৌথভাবে প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা, জাতিসংঘের শিশুদের তহবিল, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের আগে থেকে এবং এই মহামারি শুরু হওয়ার পর বিভিন্ন দেশের অর্থনীতিতে ও ব্যক্তিগতভাবে মানুষের জীবিকায় যে ক্ষতি হয়েছে। তাই ১৯০ কোটি মানুষ স্বাস্থ্যকর খাবার জোগাড় করতে অক্ষম ছিল।

ফলমূল, শাকসবজি এবং দুগ্ধজাত পণ্যের দাম বেশি হওয়ার কারণে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দরিদ্র মানুষের পক্ষে স্বাস্থ্যকর খাবারের ব্যবস্থা করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। ২০১৯ সালে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ৩৫ কোটিরও বেশি মানুষ অপুষ্টিতে আক্রান্ত ছিল, যা আনুমানিকভাবে বিশ্বজুড়ে অপুষ্টি আক্রান্ত জনগোষ্ঠীর প্রায় অর্ধেক।

প্রতিবেদনে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে পরিবারগুলোর জন্য পুষ্টিকর, নিরাপদ ও টেকসই খাবার প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে তাদের সঙ্গে বৃদ্ধির লক্ষ্যে খাদ্য ব্যবস্থা পুনর্গঠনের আহ্বান জানানো হয়েছে। সর্বত্র, সবার জন্য পুষ্টিসমৃদ্ধ ও স্বাস্থ্যকর খাবার সহজলভ্য করতে হবে। এটি নিশ্চিত করার জন্য প্রতিবেদনে সমন্বিত পদ্ধতি ও নীতিমালার প্রয়োজনীয়তার কথা বলা হয়। মা ও শিশুদের জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার নিশ্চিত করতে এ পদক্ষেপগুলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..