প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

এসএমই মার্কেট নিয়ে রায়ের বিরুদ্ধে আবেদনের শুনানি ৫ ডিসেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের পুঁজিবাজারের স্বল্পমূলধনি কোম্পানির প্ল্যাটফর্মে (এসএমই মার্কেট) বিনিয়োগের জন্য ন্যূনতম ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগে বেঁধে দেয়া বিএসইসির শর্তের বিষয়ে হাইকোর্টের দেয়া রায় স্থগিতাদেশ চেয়ে আবেদন করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বিএসইসির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ৫ ডিসেম্বর শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। গতকাল এ বিষয়ে এক আদেশ জারি করেছেন হাইকোর্ট।

তথ্য মতে, গত ১৬ নভেম্বর বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ তিন মাসের জন্য এসএমই মার্কেটে সর্বনিম্ন ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগে বিএসইসির বেঁধে দেয়া শর্ত স্থগিত করে। পরে বিএসইসির পক্ষ থেকে হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করলে সে বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য করেন হাইকোর্ট।

এর আগে গত ১৩ নভেম্বর রিট পিটিশন দায়েরের পর বিএসইসি কাছে এসএমই মার্কেটে বিনিয়োগসীমার কারণ জানতে চান হাইকোর্ট। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিন মাসের জন্য এসএমইতে ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগের শর্ত স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২২ সেপ্টেম্বর সর্বশেষ এসএমই প্ল্যাটফর্মের বিনিয়োগের জন্য বিনিয়োগের পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়। বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি আদেশে বলা হয়, এসএমইতে লেনদেনে যোগ্য বিনিয়োগকারী হতে শেয়ারবাজারে ন্যূনতম ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগ থাকতে হবে।

গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর দুই স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই ও সিএসই) ওটিসি মার্কেট বাতিল করে কমিশন। ওইদিন কমিশন সভায় ২৯ কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করে ৪১টি কোম্পানিকে এসএমই ও এটিবিতে (অল্টারনেটিভ ট্রেডিং বোর্ড) স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নেয়। পরবর্তী সময়ে একই বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের এসএমই প্ল্যাটফর্মে লেনদেন শুরু হয়।

 বর্তমানে এসএমইতে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ১৫টি। এর মধ্যে ১৩ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার নিয়মিত লেনদেন হচ্ছে।