এসএমই

এসএমই শিল্পের বিকাশে তহবিল

এসএমই খাতের উদ্যোক্তাদের ঋণসুবিধা পেতে প্রতিবন্ধকার সম্মুখীন হতে হয়। এ সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন ব্যাংক উদ্যোক্তাদের ঋণ সহায়তার ব্যবস্থা করে থাকে। এর মধ্যে রয়েছে

স্মল এন্টারপ্রাইজ ফান্ড

ক্ষুদ্রশিল্পের বিকাশে বাংলাদেশ ব্যাংক সব সময় সহায়তা করে। ক্ষুদ্রশিল্পকে উৎসাহিত করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি বিশেষ তহবিলের ব্যবস্থা রয়েছে, যা স্মল এন্টারপ্রাইজ ফান্ড (এসইএফ) নামে পরিচিত।

এটি এক ধরনের পুনঃঅর্থায়ন তহবিল। এর আওতায় পার্টিসিপেটিং ফাইন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউটের (পিএফআই) মাধ্যমে নানা খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোক্তাদের কম সুদ ও সহজ শর্তে ঋণ দেওয়া হয়। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক সরাসরি এসইএফ ফান্ড থেকে ঋণ দেয় না। পুনঃঅর্থায়ন তহবিল থেকে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি চলতি মূলধন ঋণ দেওয়া হয়। এ তহবিলের মাধ্যমে দুই লাখ থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। এর আওতায় অনেক ব্যাংক উৎপাদনমুখী শিল্প ও সেবা খাতে নারী উদ্যোক্তাদের ১০ শতাংশ সুদে সর্বোচ্চ ২৫ লাখ টাকা জামানতবিহীন ঋণ দিয়ে থাকে।

জাইকা প্রকল্প

এসএমই খাতে মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি ঋণবাজার সৃষ্টির লক্ষ্যে জাইকা সহায়তা করে। এ লক্ষ্যে ফাইন্যান্সিয়াল সেক্টর প্রজেক্ট ফর দি ডেভেলপমেন্ট অব স্মল অ্যান্ড মিডিয়াম সাইজড এন্টারপ্রাইজেস (এফএসপিডিএসএমই) শীর্ষক প্রকল্প রয়েছে সংস্থাটির।

এ প্রকল্পের আওতায় সব ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠান এবং শিল্পোদ্যোক্তারা বিনিয়োগ প্রকল্পের ক্ষেত্রে দুবছর থেকে আট বছরের জন্য ঋণ সুবিধা পেয়ে থাকে। প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় পাঁচ লাখ থেকে পাঁচ কোটি টাকা হতে হবে। উদ্যোক্তারা এ ব্যয়ের সর্বোচ্চ ৯০ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ সুবিধা পেতে পারেন। প্রকল্পের মাধ্যমে স্থায়ী সম্পত্তি, যেমন- যন্ত্রপাতি, সরঞ্জাম, কারখানা ভবন, সিভিল ওয়ার্কস, কারিগরি সহায়তা, পরামর্শক সেবাসহ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। ব্যাংকঋণের সুদহার ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে।

বিস্তারিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের প্রকল্প বাস্তবায়ন ইউনিটে।

তথ্যসূত্র: এসএমই ফাউন্ডেশন

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..