খবর দিনের খবর সুশিক্ষা

এসএসসির সিলেবাস কমল ২৫ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে। এবার বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস কমানো হয়েছে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ। সেই সিলেবাস শেষ করতে শিক্ষার্থীদের তিন-চার মাস শ্রেণিকক্ষে পড়ানো হবে। গতকাল ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এসএম আমিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের তৈরি করা সংক্ষিপ্ত সিলেবাস নিয়ে সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিবের নেতৃত্বে সভা হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস চূড়ান্ত করা হয়। এরপর সেই সিলেবাস আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করার লক্ষ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির জন্য বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক, কর্মকর্তা এবং বিশেষজ্ঞদের মতামত নিতে জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডে (এনসিটিবি) মাসব্যাপী কর্মশালা করা হয়। সেখানে দেশের নামিদামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, বাছাই করা জেলা শিক্ষা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নেয়া হয়। তাদের মতামতের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় অধ্যায়গুলো রেখে একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। সেটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে গত ১৭ জানুয়ারি তুলে দেয় এনসিটিবি।

জানা গেছে, মাধ্যমিক স্তরে সব বিভাগের মোট ৩২টি বিষয়ের ওপর কর্মশালা হয়। সে বিষয়গুলো গড়ে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ কমিয়ে আনা হয়েছে। সব বিষয়ে সমান বলা যাবে না, কারণ একেক বিষয়ে একের ধরনের পাঠ কমেছে। এসব বিষয়ের মধ্যে রয়েছে হিসাববিজ্ঞান, কৃষি, চারুকারু, বাংলা প্রথম পত্র, বাংলা দ্বিতীয় পত্র, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়, জীববিজ্ঞান, বৌদ্ধধর্ম, ব্যবসা উদ্যোগ, ক্যারিয়ার এডুকেশন, রসায়ন, খ্রিষ্টান ধর্ম, অর্থনীতি, ইংরেজি প্রথম পত্র, ইংরেজি দ্বিতীয় পত্র, ব্যাংকিং অ্যান্ড ফিন্যান্স, ভূগোল ও পরিবেশ, উচ্চতর গণিত, হিন্দু ধর্ম, ইতিহাস, গার্হস্থ্যবিজ্ঞান, আইসিটি, ইসলাম ও আদর্শ শিক্ষা, গণিত, শারীরিক শিক্ষা, পদার্থবিজ্ঞান এবং বিজ্ঞান। সংক্ষিপ্ত সিলেবাস অনুযায়ী আগামী জুনে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা আয়োজন করা হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলে দেয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে নির্দেশনা এবং কীভাবে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাস চলবে তার গাইডলাইন দেয়া হয়েছে। গাইডলাইনে বলা হয়, বড় বেঞ্চে দুই শিক্ষার্থী বসবে। আর শিক্ষার্থীদের শারীরিক দূরত্ব রাখতে হবে এক মিটার। পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আনার গুরুত্ব দেয়া হয়েছে গাইডলাইনে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের শিফট করে বিদ্যালয়ে আনতে হবে। গাইডলাইনে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জারিকৃত নির্দেশনা এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউনেস্কো, ইউনিসেফ, বিশ্বব্যাংক এবং আন্তর্জাতিক নির্দেশনা অনুসরণ করে এই নির্দেশনা প্রণয়ন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবাইকে এই নির্দেশনা মানতে হবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..