শেষ পাতা

এসপি হারুনের বিষয়ে তদন্ত শুরু হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদকে নারায়ণগঞ্জ থেকে সরিয়ে আনার পর তার বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত শুরু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মন্ত্রী এ কথা বলেন। 

গত রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে পুলিশ সুপার হারুনকে নারায়ণগঞ্জ থেকে সরিয়ে পুলিশ সদর দফতরে পুলিশ সুপার (টিআর) হিসেবে বদলির কথা জানানো হয়। এর আগে পারটেক্স গ্রুপের কর্ণধার এম এ হাশেমের ছেলে আমবার গ্রুপের চেয়ারম্যান শওকত আজিজের স্ত্রী ও সন্তানকে গত শুক্রবার ভোররাতে সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে আটকের বিষয়ে শনিবার সংবাদ সম্মেলন করেন হারুন। ওই সময় তিনি দাবি করেন, ওই গাড়ি থেকে ইয়াবা, মদ ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

যদিও অভিযোগ আসে, চাঁদা না পেয়ে শওকত আজিজের স্ত্রী-সন্তানকে ঢাকার গুলশানের বাসা থেকে ধরে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে গিয়েছিলেন এসপি হারুন। ইন্টারনেটে এর একটি ভিডিও সে সময় ছড়িয়ে পড়ে। ইন্টারনেটে ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মনে হয় এটা আমাদের অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ব্যাপার। এটা নিয়ে আপনার জিজ্ঞাসা করা ঠিক নয়।’

এসপি হারুনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি এবং উঠিয়ে নেওয়ার যে অভিযোগ এসেছে, সে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি উঠিয়ে নিয়ে গেছেন, না কী করেছেন, এটা তদন্তের ব্যাপার। তদন্তের আগে কী করে বলব যে তিনি অপরাধ করেছেন বা জোর করে উঠিয়ে নিয়েছেন। আমরা তদন্তের পরেই খোলাসা করব।’

সেই তদন্ত শুরু হয়েছে কি নাÑজানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এটা শুরু হবেই। আমরা মাত্রই তো তাকে সরিয়ে এনেছি।’

গত জাতীয় নির্বাচনের আগে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পাওয়া হারুন তার মাস তিনেক আগে গাজীপুর থেকে বদলি হয়ে পুলিশ সদর দফতরে এসেছিলেন। পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন কয়েক বছর গাজীপুরের পুলিশ সুপার ছিলেন। গত বছর মে মাসে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সময় তার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তোলে বিএনপি। হারুন একসময় ঢাকা মহানগর পুলিশে ছিলেন। তখন বিএনপি নেতা জয়নুল আবদিন ফারুকের ওপর হামলার ঘটনায় আলোচিত হন তিনি।

সর্বশেষ..