কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

এসিআই ফরমুলেশনসের দর বেড়েছে ২২ দশমিক ৫০ শতাংশ

সাপ্তাহিক বাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি এসিআই ফরমুলেশনস লিমিটেড গত সপ্তাহে দর বৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ২২ দশমিক ৫০ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৭৭ লাখ ৬১ হাজার ৫০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় তিন কোটি ১০ লাখ ৪৬ হাজার টাকা।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর এক দশমিক ২৪ শতাংশ বা এক টাকা ৪০ পয়সা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১১১ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১১১ টাকা ১০ পয়সা। দিনজুড়ে ৪৯ হাজার ৮৪০টি শেয়ার মোট ২৫২ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৫৫ লাখ ২১ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১০৯ টাকা ২০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১১৩ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৮০ টাকা ১০ পয়সা থেকে ১৭৫ টাকায় ওঠানামা করে।

২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে দুই টাকা ৯০ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৫৪ টাকা ৮৫ পয়সা, যা তার আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে দুই টাকা ৬১ পয়সা ও ৫৫ টাকা ৪৫ পয়সা।

২০০৮ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি। অনুমোদিত মূলধন ৫০ কোটি এবং পরিশোধিত মূলধন ৪৫ কোটি টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২০১ কোটি ৮২ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির মোট চার কোটি ৫০ লাখ শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ৬৬ দশমিক শূন্য দুই শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ২৭ দশমিক ২৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছয় দশমিক ৭৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ৩৮ দশমিক ৩১ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ৪৭ দশমিক ৪৮।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মতিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড। কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ১৮ দশমিক ৯৮ শতাংশ। আলোচ্য সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন ১৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৫২ হাজার টাকার শেয়ার।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৩০ শতাংশ বা ১০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৩২ টাকা ৮০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ৩২ টাকা ৮০ পয়সা। দিনজুড়ে পাঁচ হাজার ৬৫টি শেয়ার মোট সাত বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর এক লাখ ৬৬ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ৩২ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৩২ টাকা ৯০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ২৭ টাকা ৭০ পয়সা থেকে ৪০ টাকা ৫০ পয়সায় ওঠানামা করে।

‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি ২০১৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পানির ১৫০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৯৭ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২২৮ কোটি ৭০ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির মোট ৯ কোটি ৭৪ লাখ ৯০ হাজার শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৩২ দশমিক ৭২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর ৫৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ এবং বাকি ১১ দশমিক ৯২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে।

তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছে মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড। কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ১৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ। আলোচ্য সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন তিন কোটি ৫০ লাখ ২৬ হাজার ৫০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে হয়েছে ১৪ কোটি এক লাখ ছয় হাজার টাকার শেয়ার।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে কোম্পানিটির কোম্পানিটির শেয়ারদর অপরিবর্তিত থেবে প্রতিটি সর্বশেষ ১০ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়। ওইদিন কোম্পানিটির ২০ হাজার ৯৪০টি শেয়ার লেনদেন হয়, যার বাজারদর দুই লাখ ২২ হাজার টাকা। শেয়ারটির সমাপনী দর দাঁড়িয়েছে ১০ টাকা ৬০ পয়সায়। ওইদিন কোম্পানিটির শেয়ারদর সর্বোচ্চ ১০ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়। আর গত এক বছরে শেয়ারটির দর ১০ টাকা থেকে ১৬ টাকা ৫০ পয়সায় ওঠানামা করে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..