প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

এ্যাপোলো ইস্পাতের এজিএম অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি এ্যাপোলো ইস্পাতের ২২তম বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাধারণ শেয়ারহোল্ডারের উপস্থিতিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাওয়া কনভেনশন সেন্টার, মহাখালী, ঢাকায় এজিএম অনুষ্ঠিত হয়। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, এ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান দীন মোহাম্মদের সভাপতিত্বে সাধারণ সভায় ৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ঘোষিত ১০ শতাংশ বোনাস এবং পাঁচ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন করা হয়। এছাড়া কোম্পানির আয়-ব্যয় সম্পর্কিত আর্থিক বিবরণী ও এর ওপর নিরীক্ষকের প্রতিবেদনসহ পরিচালকমণ্ডলীর প্রতিবেদন অনুমোদন দেওয়া হয়। এছাড়া অবসরে যাওয়া কোম্পানির দুজন পরিচালক মোহাম্মদ শোয়েব এবং এমএ মজিদকে পরিচালক পদে পুনর্নির্বাচিত করা হয়।

বার্ষিক সাধারণ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা পর্ষদের সদস্য এমএ মজিদ, মো. রফিক, এ্যাপোলো ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আনসার আলী, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুর রহমান, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ আবুল হাসান প্রমুখ।

এজিএমে কোম্পানির চেয়ারম্যান দীন মোহাম্মদ বলেন, ২০১৫-১৬ অর্থবছর কোম্পানির জন্য একটি নতুন মাইলফলক হিসেবে বিবেচনা করা যায়। তিনি বলেন, ওই বছর কোম্পানি শুধু তার লক্ষ্যই অর্জন করেনি বরং গুণগত মানের পণ্যের মাধ্যমে শক্ত প্রতিযোগী হিসেবে এর অবস্থান নিশ্চিত করেছে।

তিনি আরও বলেন, কোম্পানির মোট আয়, মুনাফা এবং উৎপাদন দক্ষতা সব সূচকেই ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে। তিনি সভায় জানান, আলোচ্য বছরে কোম্পানির মোট বিক্রির পরিমাণ ছিল ৫৩০ কোটি টাকা এবং নিট মুনাফার পরিমাণ ছিল ৭৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকা, যা এ্যাপোলো ইস্পাতের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। তিনি আরও জানান, প্রায় ২৯ বিঘা জমি ক্রয়মূল্য যাচাইসাপেক্ষে ক্রয়ের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হয়েছে, যেখানে বার্ষিক দুই লাখ মেট্রিক টন উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন একটি নতুন ঝশরহ চধংং ঈজ গরষষ, ৩৬ হাজার মেট্রিক টন উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন কালার কোটেড ঢেউটিন এবং ৬০ হাজার মেট্রিক টন ক্ষমতাসম্পন্ন ধেষাধষঁসব খরহব স্থাপন করা সম্ভব হবে।

কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আনসার আলী বলেন, ঘঙঋ প্রকল্প বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, প্রকল্পের ভারী যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম সংস্থাপনের জন্য প্রয়োজন ছিল কিছু বিদেশি প্রকৌশলীর; কিন্তু দেশজুড়ে চলা সন্ত্রাসী হামলা, বিদেশিদের হত্যা এবং গুলশানে হলি আর্টিজান ঘটনায় বিদেশি প্রকৌশলীরা বাংলাদেশে আসতে শঙ্কিত হয়ে পড়েন; এত প্রকল্প বাস্তবায়নে বিলম্ব ঘটে।

তিনি আরও জানান, নফ প্রযুক্তির পণ্যের সংযোজন এ্যাপোলো রানী মার্কা ঢেউটিনকে কাক্সিক্ষত উচ্চতায় নিয়ে যাবে, উৎপাদন ক্ষমতা, গুণগত মানসম্পন্ন পণ্য আগামী দিনগুলোয় আরও শক্ত অবস্থানে দাঁড় করাবে।

এজিএমে উপস্থিত সব শেয়ারহোল্ডারকে ধন্যবাদ জানিয়ে দীন মোহাম্মদ বলেন, এ্যাপোলোর প্রতি বিনিয়োগকারীরা যে সাড়া দিয়েছেন, তাতে তিনি অভিভূত। তিনি আশাবাদী, বিনিয়োগকারীসহ সংশ্লিষ্ট সব পক্ষ আগামীতেও এ্যাপোলোর পাশে থাকবে। তিনি ভবিষ্যতে আরও ভালো লভ্যাংশ দেওয়ার আশাবাদও ব্যক্ত করেন।