কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

‘এ’ ক্যাটেগরিতে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘এন’ থেকে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে উন্নীত হলো প্রকৌশল খাতের কোম্পানি ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কোম্পানিটির ২০২০ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য ২০০ শতাংশ আর উদ্যোক্তা বা পরিচালকদের ৭৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। তাই ‘এন’ ক্যাটেগরি থেকে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে উন্নীত হলো কোম্পানিটির শেয়ার। ‘এ’ ক্যাটেগরির অধীনে আজ সোমবার থেকে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন শুরু হবে।

এদিকে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কর্তৃক জারি করা নিয়ম অনুযায়ী স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোনো সিকিউরিটির ক্যাটেগরি পরিবর্তনের ক্ষেত্রে পরিবর্তিত ক্যাটেগরিতে ওই সিকিউরিটি ক্রয়ের জন্য মার্জিন ঋণ প্রদানে প্রথম ৩০ দিন নিষেধাজ্ঞা জানানো হয়েছে।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে শেয়ারদর ৫ দশমিক ৫৯ শতাংশ বা ৬২ টাকা ৬০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ এক হাজার ৫৮ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল এক হাজার ৫৮ টাকা ২০ পয়সা। দিনজুড়ে এক লাখ ৫৯ হাজার ৪১৭টি শেয়ার মোট দুই হাজার ৮৫৭ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১৭ কোটি ৬০ লাখ ৩০ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনি¤œ এক হাজার ৫০ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার ১৬০ টাকায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর ৩৭৮ টাকা থেকে এক হাজার ১৯৯ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে।

কোম্পানিটি ২০২০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ৬০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৩০২ কোটি ৯২ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ সাত হাজার ৬৩১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। কোম্পানির ৩০ কোটি ২৯ লাখ ২৮ হাজার ৩৪৩ শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৯৯ দশমিক শূন্য তিন শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে শূন্য দশমিক ৪২ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে শূন্য দশমিক ৫৫ শতাংশ শেয়ার।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..