Print Date & Time : 3 July 2022 Sunday 6:36 pm

এ সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন নয়

প্রতিনিধি, দিনাজপুর: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের সামনে স্বপ্ন ছিল, আশা-আকাক্সক্ষা ছিল আমরা একটা গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করব; আমাদের সামনে স্বপ্ন ছিল সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়বো। আজ আমরা ব্যর্থতায় বেদনায় হতাশ, আওয়ামী লীগ দেশটিকে স্বৈরাচারী দেশে পরিণত করেছে, গণতন্ত্রের কথা বলে উল্টো কাজ করে।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিল গলাটিপে। আজকে আবার কয়েক বছর ধরে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে, আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। দেশকে লুট, হত্যা, গুম, রাহাজানি করে স্বৈরাচারী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।

গতকাল দুপুরে দিনাজপুর বিএনপির জেলা বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান বক্তা বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা বলেন। এর আগে লন্ডন থেকে র্ভাচুয়ালি সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

দিনাজপুর ইনস্টিটিউট চত্বরে বেলা পৌনে ১২টায় সম্মেলনস্থলে বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত হলে নেতাকর্মীরা সেøাগান দিয়ে তাদের স্বাগত জানান।

সাবেক এমপি রেজিনা ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন এবং সাংগাঠনিক সম্পাদক রংপুর বিভাগের দায়িত্বে আসাদুল হক হাবিব দুলু ও কেন্দ্রীয় নেতা দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।

ফখরুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ফরিদপুরে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে বলেছেন, যেসব নেতা দুর্নীতি ও অনিময়ের সঙ্গে জড়িত, সম্পদ লুট করে হাজার হাজার কোটি কোটি বিদেশে পাচার করেছেন, তাদের দলে জায়গা হবে না। ওবায়দুল কাদের নিজেই স্বীকার করেছেন, তাদের দলের লুটেরাদের কথা। আইনবহির্ভূত হত্যা, লুট, গুম ও রাহাজানির জন্য যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাব ও পুলিশের কর্মকতাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আগে এ সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা দিতে হবে। কারণ এ সরকার বল প্রয়োগ করে নির্বাচন ব্যবস্থাকে তাদের মতো করে নিতে চায়। আমাদের স্পষ্ট কথা, নিরপেক্ষ সরকারের মাধ্যমে পুনর্গঠিত নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন হতে হবে। তার আগে কোনো নির্বাচন নয়।

দীর্ঘ এক যুগ পর কাউন্সিলকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে ছিল প্রাণচাঞ্চল্য। ১৩ উপজেলা থেকে কাউন্সিলর ও ডেলিগেটরা সকাল থেকে সম্মেলনস্থলে উপস্থিত হন। একটা উৎসবমুখর পরিবেশে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।