বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

ওয়ালটনের গ্যাসের চুলা

৯ মাসে বিক্রি প্রবৃদ্ধি ১৮৫ শতাংশ : বাজারে এলপিজি গ্যাস আসার পর শহরে-গ্রামে সর্বত্রই এখন রান্নাবান্নায় গ্যাসের চুলা ব্যবহার করা হচ্ছে। সম্প্রতি গ্যাসের চুলার চাহিদা ও বিক্রি বেড়েছে কয়েক গুণ। আর এ চাহিদার উল্লেখযোগ্য অংশ পূরণ করছে দেশের ইলেকট্রনিক্সের শীর্ষ ব্র্যান্ড ওয়ালটন। চলতি মাসের ১৪ তারিখে এক দিনে এক লাখ ইউনিট গ্যাসের চুলা বা গ্যাস স্টোভ বিক্রি করেছে ওয়ালটন। সংশ্লিষ্টরা দাবি করছেন, এটি বাংলাদেশের বাজারের জন্য একটি রেকর্ড। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে গ্যাসের চুলা বিক্রিতে প্রায় ১৮৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ওয়ালটনের।

গ্যাসের চুলা বিক্রির এ সাফল্য উদ্যাপনে সম্প্রতি রাজধানীতে ওয়ালটন করপোরেট অফিসে কেক কাটা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ইভা রেজওয়ানা, এমদাদুল হক সরকার, নজরুল ইসলাম সরকার ও মোহাম্মদ রায়হান, অপারেটিভ ডিরেক্টর রবিউল আলম ভূঁইয়া, ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্স বিভাগের চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) আতিকুল ইসলাম, সেলস ও মার্কেটিং প্রধান মাশরুর হাসান, প্রোডাক্ট ম্যানেজার জানেসার আলীসহ অন্যান্য কর্মকর্তা।

ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের সিওও আতিকুল ইসলাম জানান, দামে সাশ্রয়ী, দেখতে সুন্দর, টেকসই ও রান্নায় গ্যাস খরচ কম হওয়ায় বাজারে গ্রাহকপ্রিয়তা পাচ্ছে ওয়ালটন গ্যাস বার্নার। বিক্রি হচ্ছে ব্যাপক। গত বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর মাসের তুলনায় চলতি বছরের একই সময়ে গ্যাসের চুলা বিক্রিতে প্রায় ১৮৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ওয়ালটনের। বছরের প্রথম ৯ মাসেই পূরণ হয়ে গেছে গ্যাস বার্নার বিক্রির বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রা।

সূত্রমতে, কয়েক বছর আগেও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা শহরগুলোতে রান্নার কাজে শুধু সরকারিভাবে সরবরাহকৃত ন্যাচারাল গ্যাস (এনজি) বা প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার হতো। পরে বিভিন্ন কোম্পানি বাজারে এনেছে এলপিজি গ্যাসের সিলিন্ডার। এর ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে শহর ও গ্রামের দৈনন্দিন রান্নায়। মানুষের মাথাপিছু আয়ের পাশাপাশি জীবনযাত্রার মানও বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রত্যন্ত গ্রামেও এখন ঝামেলাহীন রান্নার জন্য গৃহিণীদের পছন্দ এলপিজি (তরল) গ্যাস সিলিন্ডার। ফলে দেশব্যাপী গ্যাসের চুলার চাহিদা ও বিক্রি কয়েক গুণ বেড়েছে। বিজ্ঞপ্তি

সর্বশেষ..