দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

ওষুধ ও রসায়ন খাতে মুনাফা তুলে নিলেন বিনিয়োগকারীরা

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: সম্প্রতি বিনিয়োগকারীদের চাহিদার শীর্ষে রয়েছে ওষুধ ও রসায়ন খাত। যেখানে অন্য খাতের শেয়ারে ক্রেতার আকাল, সেখানে নিয়মিত এই খাতের কোম্পানিতে বিনিয়োগকারীদের ভিড় দেখা যায়। যে কারণে গত কয়েকদিন এ খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর বাড়তে দেখা গেছে। প্রায় প্রতিদিনই এই খাতের বেশিরভাগ কোম্পানিতে বিক্রেতার চেয়ে ক্রেতার সংখ্যা দেখা গেছে বেশি।

এদিকে গত কয়েকদিন এই খাতের কোম্পানির শেয়ারদর বাড়লেও গতকাল এর ভিন্নচিত্র পরিলক্ষিত হয়েছে। গতকাল দিন শেষে কমেছে এই খাতে তালিকাভুক্ত বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর। এর প্রধান কারণ, এই খাত থেকে গতকাল মুনাফা তুলে নিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। ফলে বেড়েছে শেয়ার বিক্রির প্রবণতা। যে কারণে দিন শেষে কিছুটা কমেছে এসব কোম্পানির শেয়ারদর।

গতকালের বাজার চিত্রে দেখা যায়, সকালের দিকে এই খাতের কোম্পানির শেয়ার বেশি কিনছেন বিনিয়োগকারীরা। যে কারণে শেয়ার বিক্রির আদেশও বাড়তে থাকে। এক সময়ে ক্রেতার চেয়ে বিক্রেতার সংখ্যা বেশি হয়ে যায়। মূলত তখন থেকেই শেয়ারদর কমতে থাকে। তবে শেষদিকে যারা শেয়ার বিক্রি করেছেন, তাদের বেশিরভাগই কম লাভে বিক্রি করেছেন। তবে তাদের লোকসান হয়নি।

এদিকে গতকাল এই খাতের কোম্পানির শেয়ারদর কমলেও লেনদেন তাদেরই আধিপত্য দেখা যায়। মোট লেনদেনের ৪৫ শতাংশই ছিল এই খাতের অবদান। পরের অবস্থা ছিল ব্যাংকিং খাত। এই খাতের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২০ শতাংশের বেশি। অন্যদিকে গতকাল কিছুটা আগ্রহ দেখা গেছে বিমা এবং প্রকৌশল খাতের কোম্পানির শেয়ারের। প্রায় সারাদিনই এই খাতের কোম্পানির শেয়ার কিনতে দেখা গেছে বিনিয়োগকারীদের।

অন্যদিকে গতকাল কিছুটা কমেছে ব্লক মার্কেটের আধিপত্য। এদিন ডিএসই মোট ৮১ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে ব্লক মার্কেটের লেনদেন ছিল ১৫ কোটি টাকা। এই মার্কেটে গতকাল মোট ২৯টি কোম্পানির শেয়ার কেনাবেচা হতে দেখা যায়।

এদিকে গতকাল ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানির শেয়ারদর কমার কারণে মোট শেয়ারদর বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানির সংখ্যাও কমেছে। এদিন দর বৃদ্ধি পেয়েছে মাত্র ২৪টি কোম্পানির শেয়ারের। অন্যান্য দিনের ধারাবাহিকতায় গতকাল অপরিবর্তিত ছিল অধিকাংশ কোম্পানির ও ফান্ডের শেয়ার এবং ইউনিটদর। যার সংখ্যা ২১৩ কোটি টাকা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..