প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ওয়েলিংটনে মুশফিক-তামিমরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: বাংলাদেশের ক্রিকেটে গত দুবছরে এত খারাপ সময় আসেনি। ঘরের মাঠে দুর্দান্ত কেটেছিল টাইগারদের। কিন্তু নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়েই মহাবিপদে পড়ে সফরকারীরা। এইর মধ্যে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পড়তে হয়েছে। সামনে এবার আরও ‘কঠিন’ ফরম্যাট টেস্ট সিরিজ অপেক্ষা করছে টিম টাইগার্সদের জন্য। এ সিরিজে খেলতে গতকাল মঙ্গানুই ছেড়ে স্থানীয় সময় দুপুর ৩টায় ওয়েলিংটনে পৌঁছায় মুশফিকুর রহীমের দল।

আগামী ১২ জানুয়ারি ওয়েলিংটনে শুরু হবে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে কি হয়েছে, সেসব আপাতত মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতে চাইছে টাইগাররা। কিন্তু চাইলেই কি সবকিছু এত দ্রুত ভোলা যায়! কিছুটা তো ক্ষত মনের মধ্যে খচ খচ করে।

দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের জন্য এরই মধ্যে ১৪ সদস্যদের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। চোট কাটিয়ে দলে ফিরেছেন টাইগারদের সাদা পোশাকের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা পেসার তাসকিন আহমেদও রয়েছেন স্কোয়াডে। এদিকে প্রথম টেস্টের স্কোয়াডে জায়গা হয়নি মোস্তাফিজুর রহমানের। শুধু তাকে বিশ্রামে রাখার জন্য দলে রাখেনি বিসিবি।

নিউজিল্যান্ড সফরের টি-টোয়েন্টি দল থেকে যারা টেস্টে জায়গা পাননি, তারা দেশে ফেরার অপেক্ষায় রয়েছেন। অন্যদিকে চোটের কারণে ডাক্তারের পরামর্শে অস্ট্রেলিয়া উড়াল দিয়েছেন মাশরাফি। তার সঙ্গে রয়েছে স্ত্রী-সন্তানরা।

দেশের মাটিতে গেল ইংল্যান্ডকে হারানোর সুখস্মৃতি নিয়েই কিউইদের বিপক্ষে টেস্ট খেলতে নামবে মুশফিক বাহিনী। দুই টেস্টের যে কোনো একটিতে কিউইদের হারাতে পারলে টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পেছনে ফেলবে টাইগাররা। আর যদি দুটি টেস্টেই ড্র করে, তবে প্রথমবারের মতো টেস্ট র‌্যাংকিং আটে উঠবে বাংলাদেশ। তবে এসব আপাতত স্বপ্নের মতোই রয়েছে সফরকারীদের। কেননা, রঙিন পোশাকের ক্রিকেটে যে অবস্থায় পড়েছিল বাংলাদেশ, তাতে টেস্টে খুব একটা আশা নিজেরাও দেখতে পাচ্ছেন না সাকিব-তামিমরা। কিন্তু খেলাটার নাম যে ক্রিকেট, তাই আগেভাগে কিছু বলা যায় না। যেমনটা গত বছর কিন্তু ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কেউ বলতে পারেননি মুশফিকরা টেস্ট জিতবেন।

২০ জানুয়ারি থেকে ক্রাইস্টচার্চে হবে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় টেস্ট।