বিশ্ব সংবাদ

কভিডে ব্রাজিলে মৃতের সংখ্যা পাঁচ লাখ ছাড়াল

শেয়ার বিজ ডেস্ক: মহামারি করোনাভাইরাসজনিত রোগে (কভিড-১৯) ব্রাজিলে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলছে। শনিবারও দেশটিতে দুই হাজারের বেশি মানুষ কভিডে মারা যান। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা পাঁচ লাখ ছাড়াল। মৃত্যুর তালিকায় এখন বিশ্বের দ্বিতীয় অবস্থানে ব্রাজিল। এমন পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ জানিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, টিকাদান কার্যক্রম ধীরগতিতে চলতে থাকলে আসন্ন শীতের শুরুতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর ঘটনা আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে দেশটি। খবর: বিবিসি।

শনিবার দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, পরিস্থিতি খুবই জটিল। এখন পর্যন্ত দেশটির মাত্র ১৫ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনা হয়েছে। ধীরগতি টিকা কার্যক্রমের পেছনে ব্রাজিলের কট্টর ডানপন্থি প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারোর উদাসীনতাকেই দায়ী করছেন অনেকে।

শুরু থেকেই করোনাভাইরাস সম্পর্ক একের পর এক নেতিবাচক মন্তব্য করে যাচ্ছেন তিনি। এমনকি মাস্ক পরাসহ সামজিক দূরত্ব মানতেও নারাজ তিনি। বিধিনিষেধ অমান্য করায় দু’দফা জরিমানা করা হয় তাকে।

স্বাস্থ্যবিধি না মানার পাশাপাশি টিকা না নেয়ায় ব্রাজিলে কভিড পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে।

দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার নতুন করে দুই হাজার ১৭৯ জন মৃত্যুবরণ করেন। এদিন আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজারের বেশি মানুষ। এ নিয়ে ব্রাজিলে মৃতের সংখ্যা পাঁচ লাখ ছাড়িয়েছে, যা বিশ্বে কভিডে মৃত্যুর তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে। 

গত মার্চ থেকে ব্রাজিলে গড়ে দৈনিক এক হাজার পাঁচশ’র বেশি মানুষ করোনায় মারা যাচ্ছেন। এত মৃত্যুর কারণ হিসেবে বলসোনারোর সরকারের টিকা কার্যক্রমে ধীরগতির কারণকেই দুষছেন দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তা গঞ্জালো ভেসিনা। তিনি বলেন, পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু খুবই অপ্রত্যাশিত। এ সংখ্যা আরও বাড়বে। কারণ টিকা দিতে সময়ের প্রয়োজন হচ্ছে। খুব সম্ভবত এ বছরটা ব্রাজিলের জন্য আরও কঠিন হতে যাচ্ছে। টিকা কার্যক্রম দেরিতে শুরু হওয়ায় এমন পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে।’

এদিকে শনিবার টিকা কার্যক্রমের গতি বাড়াতে বলসোনারোর সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে বিক্ষোভ করেছেন দেশটির হাজার হাজার মানুষ। রাজধানীসহ বেশ কয়েকটি শহরে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেন।

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩৮ লাখ ৭৩ হাজার ছাড়িয়েছে। সংক্রমণ এড়াতে অধিকাংশ দেশ টিকা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..