দিনের খবর প্রথম পাতা

কভিডে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১০১ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে ১০১ জন মারা গেছেন। তাদের নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় সরকারি হিসাবে মারা গেলেন ১০ হাজার ২৮৩ জন। শুক্রবারও দেশে ১০১ জনের মৃত্যু হয়। গত ৩১ মার্চ অধিদপ্তর ৫২ জনের মৃত্যুর কথা জানায়। তারপর থেকে এক দিনে মৃত্যু পঞ্চাশের নিচে নামেনি। গতকাল শনিবার ১০১ জন নিয়ে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেলেন ১০ হাজার ২৮৩ জন।

গত বছর ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের করোনা শনাক্তের কথা জানায় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। এর ঠিক ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর খবর জানানো হয়। গত ১৪ এপ্রিল মারা যান ৯৬ জন। ১৫ এপ্রিল মারা যাওয়া ৯৪ জনকে নিয়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়ায়।

গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন তিন হাজার ৪৭৩ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন সাত লাখ ১৫ হাজার ২৫২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন পাঁচ হাজার ৯০৭ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ছয় লাখ আট হাজার ৮১৫ জন।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৪৬ শতাংশ। এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৮৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিচেনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ১২ শতাংশ ও শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৪৪ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৫ হাজার ৪১৩টি, আর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৬ হাজার ১৮৫টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫১ লাখ ৫০ হাজার ৬৬৩টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৮ লাখ ৩৪ হাজার ৭১০টি। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ লাখ ১৫ হাজার ৯৫৩টি।

২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১০১ জনের মধ্যে পুরুষ ৬৯ জন। নারী ৩২ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেলেন সাত হাজার ৬৩৫ জন। নারী মারা গেলেন দুই হাজার ৬৪৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, মারা যাওয়া ১০১ জনের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব ছিলেন ৫৮ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ছিলেন ২৯ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ছিলেন আটজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে তিনজন ও ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ছিলেন তিনজন।

তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৬৭ জন। চট্টগ্রাম বিভাগের ২৩ জন, রাজশাহী ও সিলেট বিভাগের দুজন করে, খুলনা বিভাগের তিনজন ও বরিশাল বিভাগের একজন ছিলেন। ১০১ জনের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৯৯ জন। বাসায় মারা গেছেন দুজন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হওয়া পাঁচ হাজার ৯০৭ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ছিলেন চার হাজার ২০০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের এক হাজার ৪৬৮ জন, রংপুর বিভাগের ১১ জন, খুলনা বিভাগের ৪৬ জন, বরিশাল বিভাগের ৩১ জন, রাজশাহী বিভাগের ৮১ জন, সিলেট বিভাগের ৪৪ জন ও ময়মনসিংহ বিভাগের রয়েছেন ২৬ জন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..