প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

কমলাপুরে ট্রেনের টিকিট পেতে ‘যুদ্ধ’


নিজস্ব প্রতিবেদক : ঈদুল আজহা উপলক্ষে কমলাপুরে আজ বিক্রি হচ্ছে ৭ জুলাইয়ের টিকিট। সকাল ৮টা থেকে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রথম দুদিনের মতো আজও হাজার হাজার টিকিট প্রত্যাশী ভিড় করছেন কমলাপুরে।
টিকিট বিক্রি সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত চলার কথা থাকলেও আড়াই ঘণ্টার মধ্যেই শেষ হয়ে যায় ৮২ শতাংশ টিকিট। শেষ পর্যন্ত ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে থেকে টিকিট পাননি অনেকেই।
বাংলাদেশ রেলওয়ের টিকিটিং পার্টনার সহজ সিনেসিস জেভির পাবলিক রিলেশন ম্যানেজার ফরহাদ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জানান, অনলাইনের ১৪ হাজার ৮৬ টিকিটের মধ্যে ১৩ হাজার ইতোমধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। এছাড়া অফলাইনের ১৪ হাজার ৬০০ টিকিটের মধ্যে ১০ হাজারই বিক্রি শেষ হয়েছে।
ওই সময় বেশিরভাগ টিকিট বিক্রি শেষ হলেও তখনো কমলাপুর রেলস্টেশন ও শহরতলির প্ল্যাটফর্মে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় দেখা গেছে।
সাইফুল আমিন নামে এক টিকিট প্রত্যাশী বলেন, ‘আমি ভোর থেকে এখানে অবস্থান করছি। টিকিট না পেলে এ লাইনেই থাকতে হবে আগামীকালের টিকিটের জন্য’।
টিকিট প্রত্যাশীরা জানান, সড়কপথের যানজট এড়াতে এবং তুলনামূলক নিরাপদ ভ্রমণের উদ্দেশ্যেই তারা ট্রেনের টিকিট পেতে আগ্রহী। যাত্রাপথের ভোগান্তি এড়াতে আগেই ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে এসেছেন তারা।
আগামীকাল ৪ জুলাই দেয়া হবে ৮ জুলাইয়ের টিকিট। আর ৫ জুলাই দেয়া হবে ৯ জুলাইয়ের টিকিট। ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৭ জুলাই থেকে। ওইদিন বিক্রি হবে ১১ জুলাইয়ের টিকিট। ৮ জুলাই ১২ জুলাইয়ের টিকিট, ৯ জুলাই ১৩ জুলাইয়ের, ১১ জুলাই ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে। ঈদের পরদিন ১১ জুলাই সীমিত কয়েকটি আন্তঃনগর ট্রেন চলবে। তবে ১২ জুলাই থেকে সব ট্রেন চলাচল করবে।
ঢাকায় ছয়টি স্টেশন এবং জয়দেবপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঈদ উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট পাওয়া যাচ্ছে।