ধারাবাহিক

করারোপ ও বিনিয়োগ দর্শন

মিজানুর রহমান শেলী: লি’ল আবনার নিউইয়র্কবাসী কুমারী অ্যাপাসিওনাত্তা ভ্যান ক্লাইম্যাক্সের প্রেমে পড়েন। তাকে না পেলে আবনারের জীবন যেন বরবাদ হয়ে যায়। আবনার সামান্য অর্থের মালিক। মাত্র কয়েকটি রুপার মুদ্রাই তার সম্বল। অথচ সুন্দরী অ্যাপাসিওনাত্তার মোহ শুধুই সম্পদের লাগামহীন মত্ত ঘোড়ায় চেপে ছুটে চলে। অ্যাপাসিওনাত্তার দেহ ও মনে আসক্তি শুধুই কোটিপতি পুরুষের দিকে। ধীরে ধীরে আবনার অ্যাপাসিওনাত্তাকে বিয়ে করার বাসনা হারিয়ে ফেলে। অবসাদ আর বেদনায় সে মুষড়ে পড়ে। আবনার শেষমেশ তার এ মনের পাষাণসম কষ্টের কথা ওল্ডম্যান মোসের কাছে ব্যক্ত করল। ডগপ্যাচে এই লোকটি ছিল জ্ঞানের আঁধার। ঋষি লোকটি আবনার লোকটিকে বলল: তোমার অর্থকে ২০ বার দ্বিগুণ করে নাও। আর তার পরে দেখবে তোমার অ্যাপাসিওনাত্তা তোমার হয়ে গিয়েছে।
আমার আধো আধো স্মৃতির পাতা থেকে এতটুকু মনে পড়ে, আবনার একটি রোডহাউজে প্রবেশ করে। সেখানে সে একটি সøট মেশিনে তার ডলার ফেলে দেয়। তারপর তার ওপর একটি জ্যাকপটের আঘাত হানে। এতে করে তার মুদ্রাটি ভেঙে ভেঙে সারা মেঝে ছড়িয়ে পড়ে। এবার আবনার ঋষির উপদেশ মনে মনে স্মরণ করতে থাকে আর অক্ষরে অক্ষরে তা পালন করতে শুরু করে। প্রথমে সে এ ছড়িয়ে পড়া ডলারখণ্ড থেকে দুটি হাতে তুলে নিল। এবার সে আরও দুইগুণ মুদ্রা খণ্ড কুড়িয়ে নিল। যা হোক, এখানেই আমি আবনারের পাঠ চুকে বেন গ্রাহামের পাঠ শুরু করি।
ঋষি মোসকে একজন গুরু হিসেবে মান্য করা হতো। তার ছিল অসংখ্য ভক্ত। আসলে আবনার এখানে ঋষি মোসের কথা বশ্যত দাসের মতো পালন করেছিলেন। কিন্তু এ সময় ঋষি ও আবনার উভয়ে কর পরিশোধের কথা বেমালুম ভুলে গিয়েছিলেন। ফেডারেলকে ৩৫ শতাংশ হারে কর পরিশোধের কথা কি ঋষি আবনারকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন? না। এমনকি কর পরিশোধের করার পর যে পরিমাণ অর্থ বাকি থাকে তাতে কি অ্যাপাসিওনাত্তাকে বিয়ে করা সম্ভব হতে পারত? এ বিষয়ে ঋষি ও আবনারের উভয়েরই কোনো ধারণা ছিল না। এ দিকে বার্কশায়ার সবসময়ই তার আয়ের থেকে ৩৫ শতাংশ কর ফেডারেলকে পরিশোধ করে আসছে। আবনার যখন একই সঙ্গে দ্বিগুণ মুদ্রা আহরণে ব্যস্ত থাকবেন তখন সে কীভাবে তার করের বোঝাকে দ্বিগুণে পরিশোধ করার বোঝা কাঁধে সইতে পারবেন? এ বিষয়ে কি কোনো উত্তর জানা আছে? আদতে আবনার যদি ২০ বছর অপেক্ষা করেন বা প্রচেষ্টা চালান, তবে সে শুধু ২২৩৭০ ডলার একত্র করতে পারবেন।
বস্তুত তিনি যে পরিমাণ সম্পদ এক বছর ধরে একীভূত করবেন, সে সম্পদের সমুদয় সম্পদ কি নিজেরে কাছে সঞ্চয় করতে পারবেন? না তিনি পারবেন না। তাকে সে সম্পদ থেকে ১০০ ভাগের ৩৫ ভাগ ফেডারেলকে দিয়ে দিতে হবে।
আদতে আবনার আরও সাড়ে সাত বছর চেষ্টা করে অ্যাপাসিওনাত্তকে পেতে পারেন। কেননা তখন হয়তো তিনি এক কোটি ডলারের মালিক হবেন।
কিন্তু আবনার যদি তার এ অর্থ কোনো একটি ব্যবসায় বিনিয়োগ করে, তখন কী ঘটনাটি ঘটবে? যতক্ষণ পর্যন্ত না এটা দ্বিগুণ হয় ততক্ষণ পর্যন্ত এই বিনিয়োগকে তাকে ধরে রাখতে হবে। আর তিনি কি তাই করবেন? এ সব ক্ষেত্রে, তিনি হয়তো ২০০ মিলিয়ন ডলার ট্যাক্স পরিশোধের আগেই আয় করবেন। কিন্তু ট্যাক্স পরিশোধ করার পরে দেখবেন তিনি ৭০ মিলিয়ন ডলার কর পরিশোধ করে দিয়েছেন। আর এটা বছরের চূড়ান্ত হিসাব। অর্থাৎ কর পরিশোধের পরে তার হাতে থাকে ১৩০ মিলিয়ন ডলার। আর এ জন্য, অ্যাপাসিওনাত্তা হামাগুড়ি দিয়ে হোক আর বুকের ওপর ভর দিয়ে হোক ডগপ্যাচের কাছে গিয়ে নিজেকে সমর্পণ করবেন।
অবশ্যই, কথা এখানেই শেষ নয়। অ্যাপাসিওনাত্তা কি ঠিক ২৭ বছর আগে যে অবস্থায় ছিল তার দেহ ও মন নিয়ে ঠিক সেই একই অবস্থায় এই ২৭ বছর পরেও থাকবেন? না তা অবশ্যই নয়। হয়তো অ্যাপানিওনাত্তা এই ২৭ বছর পরে এখন আর মাত্র ১৩০ মিলিয়ন ডলারের ভিখারি হবে না। এখন হয়তো এ ১৩০ মিলিয়ন ডলারের পাশে তাকে ঠিক মানাবে না। এ প্রশ্নটি নিশ্চয় আরও বড় করে নতুনভাবে আবনার মাথায় বিদ্ধ হবে।
তাহলে এ ছোট গল্পটা আমাকে কী দিল। আমরা এখান থেকে আসলে কী শিখলাম। আসলে যে কর পরিশোধ করে, আর যে কর পরিশোধ করে না এ দুজনের মধ্যে ঢের তফাত রয়েছে। কেননা, কর পরিশোধকারীই শুধু জানেন বিনিয়োগের পরে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ আর্থিক লক্ষ্যে পৌঁছতে কতদিন ধৈর্য ধরতে হবে, আর তাতে করে ওই লক্ষ্যে পৌঁছাতে পেছনের কারণ ঠিক কতদিন পর্যন্ত অটুট থাকবে। বলাবাহুল্য, কর পরিশোধে যার জ্ঞান নেই সেই ঋষি আসলে এ বিষয়টি ঠিকঠাক উপলব্ধি করতে পারবেন না সেটাই স্বাভাবিক।
আসলে একমাত্র বিনিয়োগে অনেক বেশি অঙ্কের হিসাব সমন্বিত হতে পারে অভ্যন্তরীণভাবে নির্দিষ্ট একটি করের হারে। অথচ এ একই নির্দিষ্ট হারের করে পরম্পরাগত বিনিয়োগের মাধ্যমে ততটা আয় করা সম্ভব হয় না। কিন্তু আমি বার্কশায়ারের অনেক অনেক শেয়ারহোলডারকেই সন্দেহ করি, তারা অনেক আগেই একটি বড় অঙ্কের অর্থ কামাই করে নিতে সক্ষম হয়েছে।
আমরা আমাদের সবচেয়ে বড় বড় হোল্ডিংসগুলো রক্ষা করতে সক্ষম হবো। এখানে এ হোল্ডিংসগুলোর মূল্য ঠিক কত হবে সেটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়। আবার এটা ইনট্রিনসিক বিজনেস ভ্যালুর সঙ্গে কীভাবে সম্পর্কযুক্ত সেটাও বিবেচনার বিষয় নয়।
আমাদের এ বিনিয়োগী ব্যবস্থায় এলে আমৃত্যু চলমানতাই গুরুত্বপূর্ণ। আসলে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ বলতে যেটা বোঝানো হয়ে থাকে সেখানে মেয়াদের কোনো নির্দিষ্ট পরিমাপক থাকে না। আমরা আমাদের বার্কশায়ারে যে দীর্ঘ মেয়াদকে লালন করি তা শুনে অনেক বিনিয়োগকারীই হয়তো অবাক বনে যাবেন। কিন্তু আমাদের বিনিয়োগকারীরা এ বিষয়ে বদ্ধপরিকর। তারা জানেন বার্কশায়ারে মৃত্যু পর্যন্ত সম্পদ লগ্নি করা চলে। এ জন্য তারা যেমন আমাদের বিশ্বাস করেন, তেমনি আমরাও ঠিক তেমন বিনিয়োগকারীকেই আমাদের সঙ্গে নিতে পছন্দ করে থাকি। কার্যত, আমি আাগেও আলোচনা করেছি আমাদের বিনিয়োগকারীদের যোগ্যতা সম্পর্কে। তারা বেশ দক্ষ। তাদের মূল্যায়ন যোগ্যতা প্রখর। এ কারণে আমরা নিশ্চিত ক্ষতির মুখেও তারা আমাদের ওপর আস্থা রাখতে সাহস হারায় না। তারা আমাদের সঙ্গে বিনিয়োগ ধরে রাখতে পারে দীর্ঘ মেয়াদে।

এই দর্শন রচনাবলি সম্পাদনা করেছেন লরেন্স এ. কানিংহ্যাম
অনুবাদক: গবেষক, শেয়ার বিজ

সর্বশেষ..