বিশ্ব সংবাদ

করোনায় ২০ লাখ মানুষের মৃত্যুর আশঙ্কা ডব্লিউএইচও’র

শেয়ার বিজ ডেস্ক : করোনাভাইরাসের কার্যকর টিকা সহজলভ্য হওয়ার আগেই বিশ্বব্যাপী এ ভাইরাসে ২০ লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে। গত শুক্রবার এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছে খোদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তবে সংস্থাটির জরুরি কার্যক্রমবিষয়ক প্রধান মাইক রায়ান বলেছেন, আন্তর্জাতিকভাবে পদক্ষেপ নেওয়া না হলে এ সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে। খবর: বিবিসি।

মাইক রায়ান বলেন, আমরা দেখতে পাচ্ছি বিশাল অঞ্চলজুড়ে উদ্বেগজনক মাত্রায় সংক্রমণ বাড়ছে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। উৎপত্তিস্থল চীনে ৮৩ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হলেও সেখানে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমে গেছে। তবে বিশ্বের অন্যান্য দেশে এ ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে। চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ১৩ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে গত ১১ মার্চ দুনিয়াজুড়ে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

যুক্তরাষ্ট্রের দুই মহাদেশ ও দক্ষিণ এশিয়ায় সংক্রমণ এখনও দ্রুত বাড়ছে। অন্যদিকে ইউরোপকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়ে করোনা কিছুটা স্তিমিত হলেও সেখানে আবারও নতুন করে রোগটির প্রাদুর্ভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। তবে আশার কথা হচ্ছে, এখন আক্রান্তের পর সুস্থ হওয়ার হার দ্রুত বাড়ছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ লাখ ছয় হাজার ৭৬৯। মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ সাত হাজার ৯২৩ জনের।

অন্যদিকে শীতের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে পশ্চিমের দেশগুলোয় করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ধীরে ধীরে বড় হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে ড. রায়ান জানান, তিনি ইউরোপীয় দেশগুলোকে অনুরোধ করেছেন করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের বাইরে টেস্টিং, ট্রেসিং, কোয়ারেন্টাইন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার মতো পদক্ষেপগুলো জোরালোভাবে নিতে। সংবাদ সম্মেলনে ড. রায়ানকে প্রশ্ন করা হয়, ভ্যাকসিন আসার আগে ২০ লাখ মানুষের মৃত্যু সম্ভব কি না। তার উত্তর ছিল, ‘এটা অসম্ভব নয়।

তিনি জানান, চিকিৎসাপদ্ধতির অনেকটা উন্নতি হওয়ায় করোনায় সারা বিশ্বে মৃত্যুহার আগের তুলনায় কমেছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..