‘করোনা গড় আয়ু কমিয়েছে’

শেয়ার বিজ ডেস্ক: কভিডের কারণে দেড় বছরের বেশি সময় ধরে লাখ লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণে পুরো বিশ্বে এখন পর্যন্ত সাড়ে ৪৭ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ২৫ লাখ ৯৫ হাজার ১৫২। সম্প্রতি এক গবেষণা দাবি করেছে, বেশিরভাগ দেশের মানুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু কমিয়ে দিয়েছে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস। খবর: বিবিসি।

গতকাল সোমবার অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়েছে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর করোনার কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু সবচেয়ে কমেছে। মৃত্যুহার কমিয়ে আনতে কয়েক বছরে যে অগ্রগতি হয়েছিল, তা মুছে দিয়েছে করোনা মহামারি।

ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র, চিলিসহ ২৯ দেশের মৃত্যুহারের তথ্য একত্রিত করেছেন গবেষকরা। সেখানে নজিরবিহীন পরিবর্তন চোখে পড়েছে। ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব ইপিডেমিওলজিতে প্রকাশিত ওই গবেষণায় দেখা গেছে, ২৯টি দেশের মধ্যে ২৭টি দেশেই মানুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু কমেছে।

গবেষণায় দেখা যায়, ২০১৫ সালের তুলনায় ২০২০ সালে ১৫টি দেশে পুরুষদের এবং ১১টি দেশে নারীদের প্রত্যাশিত গড় আয়ু প্রায় এক বছর কমে গেছে। গবেষণার প্রধান অক্সফোর্ডের লিভারহালম সেন্টার ফর ডেমোগ্রাফিক সায়েন্সের (এসিডিএস) সহপ্রধান জোস ম্যানুয়েল আবুর্তো বলেন, পশ্চিম ইউরোপীয় দেশ, যেমন স্পেন, ইংল্যান্ড, ওয়েলস, ইতালি, বেলজিয়াম ও অন্যান্য দেশে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় প্রত্যাশিত গড় আয়ু কমে গিয়েছিল। এরপর করোনায় এই হার সবচেয়ে বেশি কমেছে।

২২ দেশে প্রত্যাশিত গড় আয়ু ছয় মাসের বেশি কমেছে। গবেষকরা বলছেন, আট দেশের নারী এবং ১১ দেশের পুরুষের গড় আয়ু এক বছরের বেশি কমেছে।

প্রত্যাশিত গড় আয়ু সবচেয়ে বেশি কমতে দেখা গেছে যুক্তরাষ্ট্রের পুরুষদের। ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে পুরুষদের প্রত্যাশিত গড় আয়ু কমে গেছে দুই বছরের বেশি।

দেশটিতে মৃত্যুহার সবচেয়ে বেশি বেড়েছে ৬০ বছরের কম বয়সীদের। অপরদিকে ইউরোপে ৬০ বছরের বেশি বয়সীদের মধ্যে মৃত্যুহার বেশি বেড়েছে।

সর্বশেষ..