আজকের পত্রিকা প্রচ্ছদ সুস্বাস্থ্য

করোনা মোকাবেলায় পাঠাও

কোভিড-১৯’-র (করোনাভাইরাস) বৈশ্বিক মহামারীর এ সময় গ্রাহক, অংশীদারসহ সবাইকে নিরাপদ রাখতে পাঠাও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। দুর্যোগপূর্ণ এ সময়ে নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে মানুষ যেন ঘরে থেকেই নিত্য প্রয়োজনীয় সব পণ্য ও সেবা পায় তা নিশ্চিত করতে অবিরাম কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। সংশ্লিষ্ট খাতের সহকর্মী, অংশীদার ও সরকারি কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে পাঠাও। দেখে নিন এর কয়েকটি:

পাঠাও টঙ: নিত্য প্রয়োজনীয় পন্যের অনডিমান্ড ডেলিভারি সার্ভিস ‘টঙ’ পুনঃরায় চালু করেছে পাঠাও। ব্যবহারকারীরা এখন অর্ডার করে খাবার, পানীয়, নিত্যপণ্য, স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ব্যবহৃত পণ্য ও ব্যবস্থাপত্র লাগে না এমন প্রয়োজনীয় ওষুধও কিনতে পারবেন। ৪০ মিনিটের মধ্যে ব্যবহারকারীদের ঘরের সামনে অর্ডার করা পণ্য পৌঁছে দেবে প্রতিষ্ঠানটি। পাঠাও অ্যাপের ফুডে ক্লিক করে যে কেউ ‘টঙ’ ব্যবহার করতে পারবেন।

নিরাপদ দূরত্বে ডেলিভারি: সব ধরণের পণ্য হাতের প্রত্যক্ষ স্পর্শ ছাড়া ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছে দেবে পাঠাও। এ লক্ষ্যে পাঠাও ডেলিভারি প্রতিনিধিদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ঘরের দরজা কিংবা অন্য কোনো নির্দিষ্ট স্থানে পণ্য ডেলিভারি বা সরবরাহের সময় প্রতিনিধিরা ব্যবহারকারীর কাছ থেকে অন্তত: তিন ফুট দূরে দাঁড়াবেন। পাঠাও অ্যাপ ব্যবহারকারীরা ভিসা কার্ড, ডেবিট কার্ড ও মোবাইল ফোনে অর্থ লেনদেন করতে পারবেন। এর মাধ্যমে অপ্রয়োজনীয় মনুষ্যসঙ্গ এড়িয়ে চলা সম্ভব।

প্রতিরক্ষামূলক সরঞ্জামাদি বিতরণ: গ্রাহকদের সেবাদানের সময় চালক, সরবরাহকারী ও ফুডম্যানরা যাতে নিরাপদ থাকেন, তা নিশ্চিত করতে তাদের মাঝে প্রয়োজনীয় প্রতিরক্ষামূলক সরঞ্জামাদি বিতরণ করেছে পাঠাও।

প্রশিক্ষণ ও সচেতনতা কার্যক্রম: করোনামহামারীর সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে নিজেদের চালক, ফুডম্যান ও সরবরাহকারীকে প্রশিক্ষণের পাশাপাশি নিয়মিত সচেতনতামূলক বার্তা পাঠাচ্ছে পাঠাও।

সামাজিক কল্যাণমূলক কার্যক্রম: যেসব প্রতিষ্ঠান সমাজের সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা ও সুরক্ষায় কাজ করছে, তাদের আর্থিক সহায়তা করছে পাঠাও।

পাঠাও’-র সিইও হুসাইন এম ইলিয়াস বলেন, আইসিটি মন্ত্রণালয়, এটুআইসহ সরকারের নানা শাখা, বাংলাদেশ ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন (ই-ক্যাব) ও এ খাতের অন্য সহযোগিদের সঙ্গে নিয়ে আমরা একটি ‘ক্রিটিক্যাল সাপ্লাই চেইন’ বজায় রাখার চেষ্টা করছি। সক্ষমতা থাকা পর্যন্ত আমরা সেবা দিয়ে যাবো। অভূতপূর্ব ও অনিশ্চিয়তার এ সময়কে ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করা সম্ভব।

সুস্বাস্থ্য ডেস্ক

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..