প্রচ্ছদ শেষ পাতা

কাঁচামাল আমদানির মূল্য পরিশোধে ছাড় পেলেন ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক: এখন থেকে শিল্পে ব্যবহƒত কাঁচামাল পণ্যের আমদানি মূল্য পরিশোধে এক বছরের সময় পেলেন ব্যবসায়ীরা। একই সঙ্গে এককালীন পরিশোধেরও সুবিধা পেলেন তারা। এতদিন শুধু মূলধনি যন্ত্রপাতি আমদানি ও বিশেষ কিছু পণ্যের বেলায় এই সুবিধা দেওয়া হতো। গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংক এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত জানায়।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, নিজ প্রয়োজনে ব্যবসায়ীরা শিল্পের কাঁচামাল আমদানির মূল্য পরিশোধে এক বছর পর্যন্ত সময় পাবেন, যার এককালীন পরিশোধ যোগ্য আমদানি মূল্য সর্বোচ্চ ১০ লাখ ডলারের বেশি হবে না। এই সুবিধা বায়ার্স ও সাপ্লায়ার্স ক্রেডিটের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।

জানা গেছে, পূর্বে ব্যবসায়ীরা পণ্য আমদানি মূল্য একসঙ্গে পরিশোধ করতেন। পরবর্তী সময়ে এটি পণ্য খালাসের তিন মাসের মধ্যেই আমদানি মূল্য কিছুটা পরিশোধের বাধ্যবাধকতা ছিল। আমদানিকৃত পণ্যের মূল্য পরিশোধে সর্বোচ্চ ছয় মাস সময় ও এককালীন সর্বোচ্চ ১০ লাখ ডলার পর্যন্ত পরিশোধের সুবিধা দেওয়া হয়।

গত জানুয়ারিতে এটিতে কিছুটা সংশোধনী আনে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেই সংশোধনী অনুযায়ী, ছোট আকারের পণ্য আমদানিকারকদের সুবিধা দিতে এককালীন মূল্য পরিশোধের সীমা ছয় মাস থেকে এক বছরের মধ্যে করা হয়। এছাড়া পাঁচ লাখ ডলার সমপরিমাণ মুদ্রা এককালীন পরিশোধ করা যাবে আমদানি মূল্য।

গতকালকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, জানুয়ারিতে দেওয়া সুবিধা এখন থেকে শিল্পের কাঁচামাল আমদানির বেলায়ও প্রযোজ্য হবে। কিন্তু আমদানিকারক নিজ প্রয়োজনেই শুধু এটি ব্যবহার করতে পারবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..