প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

কাতারের শ্রম আইনে সংস্কার

শেয়ার বিজ ডেস্ক: শ্রমিকের ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ করে শ্রম আইন সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার। বুধবার দেশটির সরকার এ ঘোষণা দেয়। সর্বনি¤œ বেতন নির্ধারণ, চাকরি পরিবর্তনের সুযোগ ও কর্মস্থলে নিজেদের (ইউনিয়ন) কমিটি গঠনে সুযোগসহ বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ রয়েছে নতুন শ্রম আইনে। খবর বিবিসি।

২০২২ কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে শ্রমিকদের দুর্ভোগ নিয়ে আন্তর্জাতিক তোপের মুখে পড়েছিল কাতার। মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন কাতারের কর্মকর্তারা। এক দিন পরেই এমন ঘোষণা এলো।

কাতারের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে আন্তর্জাতিক ট্রেড ইউনিয়ন কনফেডারেশন (আইটিইউসি)। সংস্থাটির মহাসচিব শ্যারন ব্যুরো বলেন, এ ঘোষণার মাধ্যমে কাতারে আধুনিক দাসপ্রথার ইতি ঘটতে যাচ্ছে।

আসছে নভেম্বরের মধ্যে কাতারের এ সংস্কারের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে আইএলও। ২৬ অক্টোবর থেকে ৯ নভেম্বর পর্যন্ত কর্মকর্তারা দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন।

আগে কাতারে সব বিদেশি শ্রমিকের নিয়ন্ত্রক ছিল তার কাফিল বা স্পন্সর। বেতন-ভাতা ঠিক সময়ে না পেলে, কিংবা শোষণের শিকার হলে চাকরি ছাড়ার উপায় ছিল না। কিংবা ভালো চাকরির সুযোগ পেলেও কাফিল বদলানোর সুযোগ ছিল না আগের শ্রম আইনে। দেশত্যাগেও বাধা ছিল তাদের। কাফিলা বলে পরিচিত এ ব্যবস্থা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সমালোচনা হওয়ার পর গত ডিসেম্বরে তা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় কাতার।

২০২২ বিশ্বকাপের জন্য কাজ করতে গিয়ে অন্তত ১২০০ কর্মী নিহত হন বলে ২০১৩ সালে এক প্রতিবেদনে দাবি করেছিল আইটিউইসি। কাতারের প্রায় ২০ লাখ অভিবাসী শ্রমিক রয়েছেন। বেশিরভাগই বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোতে থেকে যাওয়া। ২০১৬ সালে বাংলাদেশ থেকে কাতারে শ্রমিক পাঠানো হয় মোট এক লাখ ২০ হাজার ৩৮২ জন।