কানাডায় শীতেও তাপমাত্রার রেকর্ড

শেয়ার বিজ ডেস্ক: কানাডার পশ্চিমাঞ্চলে শীতকালেও সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। দেশটির ব্রিটিশ কলম্বিয়া প্রদেশের পেনটিকটন শহরে স্থানীয় সময় গত বুধবার তাপমাত্রা ছিল ২২ দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা শীতকালে দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড। কয়েক মাস আগে গ্রীষ্মকালেও তীব্র দাবদাহের মুখে পড়ে কানাডা। খবর: এএফপি, এনডিটিভি।

ব্রিটিশ কলম্বিয়ার লাইটন এলাকার কয়েকশ মাইল দক্ষিণপূর্বে অবস্থান পেনটিকটনের। গত গ্রীষ্মে লাইটনে কানাডার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৪৯ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। দাবদাহ থেকে সৃষ্ট দাবানলে মৃত্যু হয় স্থানীয় অনেক মানুষের।

বুধবার পেনটিকটন শহরের তাপমাত্রাকে ‘রেকর্ড’ আখ্যায়িত করেছেন আবহাওয়া-বিষয়ক সংস্থা এনভায়রনমেন্ট কানাডার আবহাওয়াবিদ আরমেল কাস্তেলান। তিনি জানান, এর আগে ১৯৮২ সালে কানাডায় শীতকালে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। সে বছর ৩ ডিসেম্বর অন্টারিও প্রদেশের হ্যামিলটন শহরে তাপমাত্রা ছিল ৭২ দশমিক পাঁচ ডিগ্রি ফারেনহাইট (২২ দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস)।

সাম্প্রতিক কয়েকটি গবেষণা বলছে, কানাডায় কয়েকটি তাপপ্রবাহের জন্য সরাসরি দায়ী জলবায়ু পরিবর্তন। এর মধ্যে গত জুনে কানাডায় আঘাত হানা তাপপ্রবাহের পেছনে মানবসৃষ্ট বৈশ্বিক উষ্ণায়ন ছাড়া আর কোনো কারণ থাকতে পারে না বলে উল্লেখ করেছে জলবায়ু নিয়ে কাজ করা আন্তর্জাতিক সংগঠন ওয়ার্ল্ড ওয়েদার অ্যাট্রিবিউশন।

এদিকে শুধু তাপমাত্রা বৃদ্ধিই নয়, ভারী বৃষ্টিপাতের জেরে গত নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকে ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়েছে ব্রিটিশ কলম্বিয়া। জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে এ বিপর্যয়েরও সংশ্লিষ্টতা রয়েছে মনে করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

এর আগে চলতি বছরের জুনে কানাডার ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড হয়েছির ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার লাইটন গ্রামে। তখন ভ্যাঙ্কুভারের পুলিশ বিভাগ এবং রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ জানিয়েছিল,  প্রচণ্ড দাবদাহে আকস্মিকভাবে অন্তত ১৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, যাদের বেশিরভাগই বয়স্ক নাগরিক।

ভ্যাঙ্কুভারের বার্নাবি অঞ্চলের রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশের (আরসিএমপি) করপোরাল মাইক কালানি নাগরিকদের উপদেশ দিয়েছেন, বয়স্ক নাগরিক এবং প্রতিবেশীদের খোঁজখবর রাখার জন্য।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯১১২  জন  

সর্বশেষ..