সারা বাংলা

কুষ্টিয়ায় পেঁয়াজের বাম্পার ফলন

কুদরতে খোদা সবুজ, কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ায় এ বছর পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে কুষ্টিয়ায়। বর্তমানে জমি থেকে পেঁয়াজ উত্তোলন এবং বাজারজাতকরণে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। তবে পেঁয়াজের উৎপাদন ভালো হলেও কাক্সিক্ষত দাম না পাওয়ায় কিছুটা হতাশ চাষিরা।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, কুষ্টিয়ায় এবার ১১ হাজার ২০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় এক হাজার ৬৭৯ হেক্টর, খোকসা উপজেলায় দুই হাজার ১৭১ হেক্টর, কুমারখালী উপজেলায় চার হাজার ৬৫৫ হেক্টর, মিরপুর উপজেলায় ২৫৫ হেক্টর, ভেড়ামারা উপজেলায় ২০০ হেক্টর এবং দৌলতপুর উপজেলায় দুই হাজার ২২০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ১১ হাজার ১৯০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের চাষ করা হয়েছে।
কুমারখালী উপজেলার কয়া গ্রামের পেঁয়াজচাষি মো. জিয়া উদ্দিন জানান, এ বছর দেড় বিঘা জমিতে পেঁয়াজের চাষ করেছি। পেঁয়াজ চাষে খরচ হয়েছে প্রায় ২০ হাজার টাকা। পেঁয়াজের ফলন ভালো হয়েছে। দেড় বিঘা জমিতে প্রায় ৫০ মণ পেঁয়াজ পাব আশা করছি। তিনি আরও জানান, বর্তমানে জমি থেকে পেঁয়াজ উত্তোলন শুরু হয়েছে। তবে বাজারে এখনও পেঁয়াজের দাম কম। গতবার পেঁয়াজ বিক্রি করে খরচ বাদে প্রায় ৩০ হাজার টাকা লাভ করেছিলাম। যদি পেঁয়াজের দাম ভালো পাওয়া যায় তবে এবারও ৫০ মণ পেঁয়াজ লাখ টাকায় বিক্রি করতে পারব বলে আশা করছি। একই গ্রামের মো. মফিজ শেখ জানান, এবার পেঁয়াজের ফলন ভালো হয়েছে। কৃষি বিভাগ চাষিদের পেঁয়াজ উৎপাদনে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছে। তিনি আরও জানান, বিভিন্ন হাটবাজারে নতুন পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। বর্তমানে প্রতি মণ পেঁয়াজ সাড়ে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে এখনো সেভাবে পেঁয়াজ তোলা শুরু হয়নি। কিছুদিন পর থেকে কৃষকরা মাঠ থেকে পুরোদমে পেঁয়াজ তোলা শুরু করবেন। দৌলতপুর উপজেলায় চিলমারি চর গ্রামের রমজান আলী জানান, গত বছর পেঁয়াজ চাষ করে অনেক লোকসান হয়েছে। অতিবৃষ্টিতে অনেক পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে। এবারও তিন বিঘা জমিতে পেঁয়াজের চাষ করেছি। পেঁয়াজের ফলন ভালো হয়েছে। আশা করছি গত বছরের লোকসান এ বছর পুষিয়ে নিতে পারব। একই এলাকার নয়ন আলী জানান, এ বছর আমি এক বিঘা জমিতে পেঁয়াজের চাষ করেছি। তবে শুরুর দিকে বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজের কিছুটা ক্ষতি হয়েছে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক বিভূতিভূষণ সরকার বলেন, কুষ্টিয়ায় এবার ১১ হাজার ২০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। তবে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে কিছুটা বেশি পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। বৃষ্টিতে পেঁয়াজের কিছুটা ক্ষতি হলেও সে ক্ষতি পুষিয়ে গেছে। পেঁয়াজের ফলনও অনেক ভালো হয়েছে।

সর্বশেষ..