কোম্পানি সংবাদ

কৃষিভিত্তিক কোম্পানিতে বিনিয়োগ করবে কাট্টলী টেক্সটাইল

নিজস্ব প্রতিবেদক: কৃষিভিত্তিক কোম্পানি লাকি অর্গানিকস লিমিটেডে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বস্ত্র খাতের কোম্পানি কাট্টলী টেক্সটাইল লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। লাকি অর্গানিকস লিমিটেডে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ মোট আট কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে। এর মধ্যে বর্তমানে কাট্টলী টেক্সটাইলের বিনিয়োগের পরিমাণ হবে তিন কোটি ২০ লাখ টাকা। আর এ বিনিয়োগের মাধ্যমে কাট্টলী টেক্সটাইলের বছরে আনুমানিক আয় হবে এক কোটি ৫৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা। আর বছরে আনুমানিক মুনাফা আসতে পারে ৭৮ লাখ ৫১ হাজার ৪৬৪ টাকা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তথ্যমতে, গত বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টায় কাট্টলী টেক্সটাইল লিমিটেডের এক সভায় কৃষিভিত্তিক কোম্পানি লাকি অর্গানিকস লিমিটেডে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেন কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। শতভাগ কৃষি খাতভিত্তিক এ কোম্পানিটি নানা ধরনের কৃষিভিত্তিক পণ্য তৈরি করবে।

কোম্পানি থেকে প্রকাশিত এক তথ্য অনুযায়ী, বিনিয়োগের পর কোম্পানিটির বিনিয়োগ থেকে আয়ের একটি আনুমানিক হিসাব দেখানো হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, প্রথম বছরে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য ১৯ টাকা ৭৬ পয়সা, দ্বিতীয় বছরে ২২ টাকা ৪৭ পয়সা ও তৃতীয় বছরে ২৫ টাকা ২৪ পয়সা হতে পারে। আর শেয়ারপ্রতি আয় হতে পারে প্রথম বছরে দুই টাকা ৫৫ পয়সা, দ্বিতীয় বছরে দুই টাকা ৭১ পয়সা এবং তৃতীয় বছরে দুই টাকা ৮৭ পয়সা। এছাড়া প্রথম বছরে বিনিয়োগ থেকে আয় হবে ৭৭ লাখ ৫২ হাজার ২২৪ টাকা। দ্বিতীয় তা বেড়ে হবে এক কোটি ১১ লাখ আট হাজার ৮২৪ টাকা এবং তৃতীয় বছরে এক কোটি ৪৬ লাখ ২৮ হাজার ২২৪ টাকা।

এদিকে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারদর ছয় দশমিক ৩০ শতাংশ বা ৮০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ১১ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ১১ টাকা ৯০ পয়সা। ওইদিন কোম্পানিটির ২৫ লাখ ৩০ হাজার ৬৬৪টি শেয়ার মোট ৯০৬ বার হাতবদল হয় যারা মোট মূল্য তিন কোটি দুই লাখ ৬৭ হাজার টাকা। ওইদিন শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১১ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১২ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে কোম্পানির শেয়ারদর ১০ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ৩৪ টাকা ৬০ পয়সায় ওঠানামা করে।

২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা দুই শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেওয়ার ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৩৪ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা এক পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে এক টাকা ৬০ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ১৯ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় চট্টগ্রামে অবস্থিত ভাটিয়ারি গলফ অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে কোম্পানিটি। প্রথম প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৬২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৪৬ পয়সা। এছাড়া ২০১৯ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৬৩ পয়সা, যা ২০১৯ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৮ টাকা এক পয়সা। আর প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ৭০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ২০ পয়সা ছিল।

কোম্পানিটি ২০১৮ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ১৫০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৯৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৫৯ কোটি ৪৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির ৯ কোটি ৭৯ লাখ শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৩০ দশমিক ৩২ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক ১০ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে শূন্য দশমিক শূন্য ছয় শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৫৯ দশমিক ৬২ শতাংশ শেয়ার।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..