সুশিক্ষা

ক্যাম্পাসে শীতের আমেজ

শীত তুমি কি কাকডাকা ভোরে কুয়াশার খেলা, নাকি মিষ্টি নরম রোদের স্নিগ্ধ সকাল বেলা? শীত তুমি কি শিশির ভেজা ঘাসের ডগায় মুক্তোর দানা, নাকি নকশিকাঁথার ক্যানভাসে মনের আনমনা?

শীতকালে কুয়াশার চাদরে মোড়ানো আলো-আঁধারিতে ফেরিওয়ালার হেঁটে যাওয়া, কৃষকের ক্ষেতে কাজ করা, কাঠ, খড় দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে তাপ পোহানো, সূর্যের মিষ্টি আলোর আভায় সৃষ্ট অপরূপ প্রকৃতি গ্রামীণ সমাজকে অসাধারণ করে তোলে।

নগর জীবনেও শীতের আলাদা সৌন্দর্য চোখে পড়ে। ইট পাথরের আটকেপড়া জীবনে গায়ে চাদর মুড়িয়ে কুয়াশা ভেদ করে গন্তব্যে ছুটে চলা, চায়ের দোকানের টুংটাং শব্দ, পরিছন্নতা কর্মীর ঝাড়ু দেওয়া, গাড়ির হেডলাইটের আবছা আলোর উৎস থেকে হেলপারের হাঁক-ডাক শহরের জীবনে ভিন্ন আবেশ তৈরি করে।

গ্রাম কিংবা শহরের এমন সৌন্দর্যের মতোই শীতকালে অসাধারণ সৌন্দর্য তৈরি হয় গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়টির সবুজে ঘেরা ক্যাম্পাসে শীতের অন্যরকম আমেজ তৈরি হয়। ক্যাম্পাসের পাশে বিশাল পুকুরে উড়ে আসা সাইবেরিয়ার অতিথি পাখিগুলো দেখলে চোখ জুড়িয়ে যায়। প্রধান ফটক থেকে অ্যাকাডেমিক ভবন পর্যন্ত রাস্তার দুইপাশের ফুল গাছের ফুলগুলো ভালো লাগার দৃশ্য তৈরি করে। সকালের মিষ্টি রোদের আভায় ফুলের ওপর জমা শিশির বিন্দুগুলো মুক্তো দানার মতো ঝলমল করতে থাকে। মাঠের সবুজ প্রান্তরে ঘাসের ওপর হাঁটার সময় শিশিরে ভেজা ঘাসগুলো মনে করিয়ে দেয় গ্রামের মেঠো পথে হাঁটার সে অনুভূতি।

ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফৌজিয়া আক্তার জুঁই বলেন, শীত একটি রোমাঞ্চকর ঋতু। সকালে গায়ে চাদর জড়িয়ে কুয়াশার বুক ছিন্ন করে ক্যাম্পাসে যাওয়ার মধ্যে কেমন যেন এক রোমাঞ্চকর অনুভূতি কাজ করে। মনে হয়, উষ্ণতা সারা গায়ে লেগে রয়েছে।

শীতের সকালে ক্যান্টিনে বসে গরম চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে শীত নিবারণের পাশাপাশি গল্প আড্ডায় মেতে উঠে শিক্ষার্থীরা। ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী মেহেদী আহমেদ বলেন, সকালে বিছানা ছেড়ে উঠতে ইচ্ছে করে না। ক্যাম্পাসে আসার পর বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডার উষ্ণতায় সব খারাপ লাগা দূর হয়ে যায়। বিশেষ করে ক্যাম্পাসের প্রবেশমুখে রাস্তার দুই পাশের শিশিরে ভেজা ফুলগুলো দেখার পরে মন যেন স্বপ্নের রাজ্যে হারিয়ে যায়।

শীতকালের অন্যতম আকর্ষণ পিঠা। আর তাই তো, ক্যাম্পাসের পিঠার দোকানে ভিড় আর আড্ডা যেন শেষই হতে চায় না। সকালের সোনা রোদে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে খেলাধুলার মজাই আলাদা। মাঠে দৌড়াদৌড়ি করে শরীর গরম করার আমেজ একটা উৎসবে পরিণত হয়েছে। এ সময় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, পিঠা উৎসব, শীত বস্ত্র বিতরণ প্রভৃতি কর্মসূচি চলে ক্যাম্পাসজুড়ে।

  তানভীর আহম্মেদ

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..