বিশ্ব সংবাদ

ক্যারিবীয় দ্বীপে সক্রিয় আগ্নেয়গিরি সরানো হলো হাজারো মানুষ

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ক্যারিবীয় অঞ্চলের দ্বীপরাষ্ট্র সেন্ট ভিনসেন্টে প্রায় ৪২ বছর পর সক্রিয় হয়ে উঠেছে আগ্নেয়গিরি লা সৌফ্রিয়ার। পরিস্থিতি বিবেচনা করে আগ্নেয়গিরির কাছাকাছি এলাকায় বসবাসকারীদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রালফ গঞ্জালভেস। খবর: বিবিসি, রয়টার্স।

লা সৌফ্রিয়ারে আগ্নেয় পর্বতে সর্বশেষ অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটেছিল ১৯৭৯ সালে। তার চার দশকেরও বেশি সময় পর গত বৃহস্পতবার প্রথম অগ্ন্যুৎপাতের লক্ষণ দেখা দেয়। এদিন সন্ধ্যার দিকে আগ্নেয় পর্বতের জ্বালামুখের চারপাশে লাভার স্তর দেখতে পান প্রত্যক্ষদর্শীরা। পরদিন শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টার দিকে শুরু হয় অগ্ন্যুৎপাত।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ব বিভাগ জানিয়েছে, আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখ থেকে ছয় কিলোমিটার উঁচু পর্যন্ত পৌঁছেছে কালো ধোঁয়া ও ছাইয়ের স্থম্ভ। আর দেশটির জাতীয় জরুরি অবস্থা ব্যবস্থাপনা সংস্থা (এনইএমও) জানিয়েছে, আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখ থেকে চার হাজার ৪৯ ফুট উঁচু পর্যন্ত পৌঁছেছে কালো ধোঁয়া ও ছাইয়ের স্থম্ভ।

এদিকে বৃহস্পতিবার অগ্ন্যুৎপাতের লক্ষণ দেখা যাওয়ার পর সেদিনই পর্বতের আশেপাশের এলাকাকে ‘রেড জোন’ হিসেবে ঘোষণা করে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন সেংন্ট ভিনসেন্টের প্রধানমন্ত্রী রালফ গঞ্জালভেস। দেশটির জাতীয় জরুরি অবস্থা ব্যবস্থাপনা সংস্থা (এনইএমও) জানিয়েছে ইতোমধ্যে লা সৌফ্রিয়ারের আশেপাশের এলাকা থেকে ১৬ হাজারেরও বেশি মানুষকে দ্বীপের অপর প্রান্তে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

ল্যাভার্ন কিং নামের এক স্বেচ্ছাসেবক জানিয়েছেন, আকস্মিক এ অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন ও এলাকার মানুষজন। ‘রেড জোন’ থেকে মানুষদের সরিয়ে নেয়া এখনও অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

পূর্ব ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের অন্যান্য দ্বীপগুলোর মতো সেইন্ট ভিনসেন্টও আগ্নেয় দ্বীপমালার অন্তর্ভুক্ত। দুটি আগ্নেয় পর্বত রয়েছে দেশটিতে লা সোফ্রিয়ারে এবং মাউন্ট পিলি।

এর আগে ১৯৭৯ যখন সর্বশেষ অগ্ন্যুৎপাত হয়েছিল লা সোফ্রিয়ারে, সে সময় আর্থিক হিসেবে মোট ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ছিল ১০ কোটি ডলারেরও বেশি। তবে সেইন্ট ভিনসেন্টের ইতিহাসে অগ্ন্যুৎপাতের কারণে সবচেয়ে ধ্বংসযজ্ঞ হয়েছিল ১৯০২ সালে অগ্ন্যুৎপাতের সময়। বিপুল পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি সে সময় নিহত হয়েছিলেন এক হাজারেরও বেশি মানুষ।

মাউন্ট পিলি যদিও বহু বছর ধরে নিষ্ক্রিয় অবস্থায় আছে, তবে স্থানীয় পত্রিকাগুলো বলছে, সম্প্রতি সেখানেও অগ্ন্যুৎপাতের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..