সুশিক্ষা

ক্যারিয়ার গড়ার সম্ভাবনা রয়েছে পুঁজিবাজারে

সম্ভাবনাময় খাতের মধ্যে অন্যতম পুঁজিবাজার। অর্থনীতির আকার যত বড়, পুঁজিবাজারের আকার তত বড় হবে। পুঁজিবাজার বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তৈরি হবে ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্র। তাই আগামীতে পুঁজিবাজারে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য এখনই প্রস্তুতি নিতে হবে। একই সঙ্গে জরুরি পুঁজিবাজারের উন্নয়ন। ভালো প্রতিষ্ঠান বাজারে তালিকাভুক্ত না হলে প্রত্যাশিত বিনিয়োগ আসবে না।

ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে (ইডিইউ) ‘ক্যারিয়ার অপর্চুনিটিজ ইন ক্যাপিটাল মার্কেট’ শীর্ষক একটি সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মু. সিকান্দার খান। গত ২৬ অক্টোবর ইডিইউর সেমিনার হলে এ অনুষ্ঠানে মূল বক্তা ছিলেন স্ট্র্যাটেজিক ফাইন্যান্স লিমিটেডের সিইও আদনান মাহমুদ চৌধুরী। ইডিইউ বিজনেস ক্লাবের উদ্যোগে সেমিনারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ক্লাবের উপদেষ্টা ও স্কুল অব বিজনেসের সহকারী অধ্যাপক তুফাতুন নেসা চৌধুরী।

ইডিইউর প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, যেকোনো দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে অন্যতম স্তম্ভ হলো পুঁজিবাজার। মেধাবী শিক্ষার্থীরা এ খাতের সম্ভাবনাময় সম্পদ। তাই শিক্ষার্থীদের এ মার্কেট সম্পর্কে সম্যক ধারণাদানের মাধ্যমে তাদের গড়ে তুলছে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি। ক্যারিয়ার গঠনের ক্ষেত্রে উপযোগী ক্ষেত্রগুলো সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের জানাশোনায় যেন কোনো ঘাটতি না থাকে, সে ব্যাপারে সচেষ্ট ইডিইউ।

আদনান মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ক্যাপিটাল মার্কেটে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন কাজের প্রতি একাগ্রতা। কঠোর পরিশ্রম ও কাজের প্রতি নিষ্ঠা অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে পারে। ডিগ্রি এখানে কোনো সমস্যা নয়, থাকতে হবে উন্নত মানসিকতা। তাহলে নতুন প্রজš§ খুঁজে পাবে এক নতুন বাংলাদেশকে।

তিনি আরও বলেন, কর্মসংস্থানের সুযোগ বেশি থাকলেও বিষয়টি জটিল হওয়ায় পুঁজিবাজার নিয়ে কাজ করতে অনেকে ভয় পান। বিনিয়োগের পাশাপাশি হাউজগুলোয় রয়েছে চাকরির সুযোগ। বিএসইসি, সিডিবিএল, ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ, ৬২টি মার্চেন্ট ব্যাংক, ৪৪টি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি, ৪০০টি ব্রোকারেজ হাউজ, ১৭টি অল্টারনেটিভ ফান্ড ম্যানেজার ও আটটি ক্রেডিট রেটিং এজেন্সিতে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ আছে। আর অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে করতে পারেন বিনিয়োগ। শুধু প্রয়োজন নিজের যোগ্যতার সঙ্গে মিলিয়ে কাজের সন্ধান চালিয়ে যাওয়া।

সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক মুহাম্মদ হাসমত আলি, ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সামস উদ-দোহা, রেজিস্ট্রার সজল কান্তি বড়–য়া, স্কুল অব বিজনেসের সহকারী অধ্যাপক তাবাসসুম চৌধুরী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শরফুদ্দীন রাশেদ, মাইডাস সেফটি বাংলাদেশের মানবসম্পদ ব্যবস্থাপক অতনু গুপ্ত, ফনিক্স ফাইন্যান্সের ব্যবস্থাপক সাজেদুর রহমান প্রমুখ।

# সুশিক্ষা ডেস্ক

সর্বশেষ..