সম্পাদকীয়

ক্রিকেটে বিদ্যমান সমস্যার যৌক্তিক সমাধান করুন

বিশ্বের বুকে দেশের ভাবমূর্তিও উজ্জ্বল করেছে ক্রিকেট। তাই এটি নিয়ে মানুষের আশা-আকাক্সক্ষাও অনেক। তবে হঠাৎ করে খেলোয়াড়দের আন্দোলনে টালমাটাল হয়ে উঠেছে দেশের ক্রিকেটাঙ্গন। অথচ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অস্থিরতা দেখা গেলেও ক্রিকেটে তেমন সমস্যা তৈরি হয়নি কখনও। অবশ্য ক্রিকেটসংশ্লিষ্টরা বলছেন, দীর্ঘদিনের ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটেছে এ আন্দোলনের মাধ্যমে। জাতীয় দলের সিংহভাগ ক্রিকেটার এতে যোগ দিয়েছেন। বিষয়টি তাই অবহেলার চোখে দেখার সুযোগ নেই। ক্রিকেটারদের দাবিগুলো গুরুত্বসহ নিয়ে তার যৌক্তিক সমাধান নিশ্চিত করা জরুরি।

গতকালের দৈনিক শেয়ার বিজে ‘সাকিবদের বিদ্রোহ, ভারত সফর অনিশ্চিত’ শিরোনামে প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। খবরটিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বিভিন্ন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আগে থেকেই অসন্তোষ জানিয়ে আসছিলেন ক্রিকেটাররা। সংবাদমাধ্যম গুরুত্বসহ সংবাদও প্রচার করে। তারপরও টনক নড়েনি ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটির, যে কারণে বিসিবির বিপক্ষে একজোট হয়ে বিদ্রোহের ঘোষণা দিয়েছেন ক্রিকেটাররা। ফলে টাইগারদের আসন্ন ভারত সফরও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে, যা উদ্বেগজনক। অথচ ক্রিকেটাররা যেসব দাবি জানিয়ে আন্দোলনে নেমেছেন, তার সিংহভাগই যৌক্তিক বলে মনে করছেন ক্রিকেটবোদ্ধারা।

বেতন বৃদ্ধিসহ সাকিব-তামিমরা যে দাবি জানিয়েছেন, তার মধ্যে রয়েছেÑচুক্তিভুক্ত খেলোয়াড় বাড়ানো, বিসিবির বেতনভুক কর্মীর আর্থিক নিরাপত্তা বৃদ্ধি এবং ঘরোয়া ক্রিকেটে অনিয়ম ও

দুর্নীতির অবসান করা। এর মধ্যে শুধু বেতন বৃদ্ধি নিয়ে বিভিন্ন মহল কিছুটা আপত্তি জানালেও অন্য দাবিগুলোর বিষয়ে তেমন দ্বিমত করছেন না কেউ। খবরেই উল্লেখ করা হয়েছে, এটি দীর্ঘদিনের

দুর্বল নেতৃত্ব ও সাংগঠনিক ব্যর্থতার বহিঃপ্রকাশ বলে মনে

করছেন অনেক ক্রিকেটবোদ্ধা। এর সমাধানে দ্রুত উদ্যোগ না নিলে দেশের ক্রিকেটের বড় ক্ষতি হয়ে যাবে। ক্রিকেটের কর্তাব্যক্তিদের সে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

অবশ্য গতকালই এ আন্দোলন নিয়ে ‘ষড়যন্ত্র তত্ত্ব’ সামনে এনেছেন বিসিবি সভাপতি, যা অনেককেই বিস্মিত করেছে। এ ধরনের বক্তব্য না দিয়ে সমস্যাগুলো সমাধানে মনোযোগী হওয়া তার জন্য বেশি যুক্তিযুক্ত বলে অনেকে মনে করছেন। দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট খেলা, ক্যাম্প ও অনুশীলন থেকে বিরত থাকবেন ক্রিকেটাররা। ফলে ঝুঁকিতে গুরুত্বপূর্ণ ভারত সফরও। এ সফরের আগেই উদ্ভূত সমস্যার যৌক্তিক সমাধান করা হবে বলে আমরা আশা করি। কারণ এর সঙ্গে দেশের ভাবমূর্তিও জড়িত। ক্রীড়াঙ্গনের পরিবেশ ঠিক রাখতে ক্রিকেটারদেরও দায়িত্বশীল হতে হবে। এছাড়া ক্রিকেটাঙ্গনের দায়িত্ব ক্রিকেটবোদ্ধাদের হাতেই থাকা উচিত বলে অভিমত অনেকের বিষয়টি যৌক্তিক হলে তা নিশ্চিত করতে হবে।

সর্বশেষ..