বিশ্ব সংবাদ

ক্ষমতায় এলে ডব্লিউএইচওতে ফিরে যাবেন বাইডেন

শেয়ার বিজ ডেস্ক : আগামী নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে জয়ী হলে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্ত বাতিল করবেন ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন। গত মঙ্গলবার টুইটারে দেওয়া পোস্টে তিনি বলেন, ভোটে জিতলে দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম দিনই যুক্তরাষ্ট্র ফের ডব্লিউএইচও’তে যোগ দেবে। খবর: বিবিসি ও রয়টার্স।

গত মে মাসে ডব্লিউএইচও থেকে বেরিয়ে আসার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলেও মঙ্গলবার এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেন ট্রাম্প। তার সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে টুইটে জো বাইডেন বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সুরক্ষা জোরদারে যুক্তরাষ্ট্র নিয়োজিত থাকলে আমেরিকানরা অপেক্ষাকৃতভাবে বেশি নিরাপদ থাকবে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমার প্রথম দিনই ফের ডব্লিউএইচও’তে যোগ দেব এবং বিশ্বমঞ্চে আমাদের নেতৃত্ব পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করব।’

২০২০ সালের নভেম্বরে অনুষ্ঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্ব^ী জো বাইডেন। নিজ দলের আরেক শক্তিমান নেতা বার্নি স্যান্ডার্সের সঙ্গে দূরত্ব ঘোচাতে সমর্থ হওয়ায় তাকে একজন শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে দেখা হচ্ছে। নির্বাচনী জরিপগুলোতেও ট্রাম্পের চেয়ে ১০ পয়েন্টেরও বেশি ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন তিনি।

এদিকে মঙ্গলবার ডব্লিউএইচও থেকে বেরিয়ে যাওয়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে সংস্থাটি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়ে এতে যুক্তরাষ্ট্রের তহবিল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র জানান, ট্রাম্প প্রশাসনের পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেসের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে নোটিস পাঠানো হয়েছে।

জাতিসংঘ মহাসচিবের এক মুখপাত্র ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকেও যুক্তরাষ্ট্রের নোটিস পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। রয়টার্স জানিয়েছে, আনুষ্ঠানিক নোটিস দিলেও ডব্লিউএইচও থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পুরোপুরি বেরিয়ে যেতে এক বছর সময় লাগবে। যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষ করে ২০২১ সালের ৬ জুলাই সংস্থাটি থেকে বেরিয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্র।

এক মাসেরও বেশি আগে ট্রাম্প ডব্লিউএইচও থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। পরে তিনি তহবিল বন্ধ করে তা অন্য খাতে কাজে লাগানোর ঘোষণা দেন। সংস্থাটির সবচেয়ে বড় দাতা দেশ যুক্তরাষ্ট্র প্রতি বছর ৪০০ মিলিয়ন ডলার দিয়ে থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের ১৯৪৮ সালের এক যৌথ রেজুলেশন অনুযায়ী, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য এক বছরের সময় দিয়ে নোটিস দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এই সময়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রকে আর্থিক সহযোগিতাও দিয়ে যেতে হবে। ডব্লিউএইচও’র ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, সংস্থাটি যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে প্রতিশ্রুত ২০০ মিলিয়ন ডলার এখনও পায়নি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..