বিশ্ব সংবাদ

ক্ষুব্ধ হয়ে ইমরানকে জেট থেকে নামিয়ে দেন সালমান!

শেয়ার বিজ ডেস্ক:  নিউইয়র্কে সদ্যসমাপ্ত জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনকালে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বেশকিছু কূটনৈতিক তৎপরতায় সৌদি আরবের যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান ক্ষব্ধ হয়েছিলেন। এরই প্রতিক্রিয়ায় নিউইয়র্ক থেকে ইসলামাবাদে ফেরার পথে সালমান তার ব্যক্তিগত জেট থেকে ইমরান খানসহ পাকিস্তানি প্রতিনিধিদলকে নামিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন বলে দাবি করেছে লাহোরভিত্তিক এক ম্যাগাজিন। খবর: এনডিটিভি।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এবার জাতিসংঘের ৭৪তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দেওয়ার আগে সৌদি আরব সফরে ছিলেন ইমরান খান। পরবর্তীতে সেখান থেকে জাতিসংঘের অধিবেশনে যাত্রাকালে ইমরান খানকে সাধারণ বাণিজ্যিক বিমানের পরিবর্তে তার ব্যক্তিগত জেটে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার প্রস্তাব দেন সালমান।
সে সময় পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, সৌজন্যের নিদর্শন হিসেবে সৌদি আরবের যুবরাজ অতিথিকে বাণিজ্যিক বিমানের বদলে ব্যক্তিগত জেট ব্যবহারের প্রস্তাব দেন। পরবর্তীতে ওই জেটে করেই নিউইয়র্ক যান ইমরান। ২৮ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের অধিবেশন শেষে ওই একই জেটে করে নিউইয়র্ক থেকে ইসলামাবাদের উদ্দেশে যাত্রা করেন ইমরান খানসহ পাকিস্তানি প্রতিনিধিদল। কিন্তু ফিরতি পথে জেটটিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় পুনরায় নিউইয়র্কে ফিরে একটি বাণিজ্যিক বিমানে করে দেশে ফেরেন তারা।
কিন্তু গত শুক্রবার ফ্রাইডে টাইমসের এক খবরে এর সম্পূর্ণ বিপরীত তথ্য তুলে ধরা হয়। এতে বলা হয়, নিউইয়র্কে পাক প্রধানমন্ত্রীর বেশকিছু কূটনৈতিক তৎপরতায় উপেক্ষিত বোধ করেন মুহম্মদ বিন সালমান। ম্যাগাজিনটি জানায়, জাতিসংঘ অধিবেশনের ফাঁকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ও মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গে ইসলামি বিশ্বকে যৌথভাবে উপস্থাপনের ব্যাপারে আলোচনা করেন ইমরান খান। সে সময় বিশ্বব্যাপী ইসলামভীতি মোকাবিলায় ইংরেজি ভাষায় একটি টেলিভিশন চ্যানেল চালুর ব্যাপারেও কথা বলেন তারা। এসবের সূত্র ধরেই ফিরতি পথে পাকিস্তানি প্রতিনিধিদলকে ব্যক্তিগত জেট থেকে নামিয়ে দিয়ে সৌদি যুবরাজ দৃশ্যত ইমরান খানকে তিরস্কার করেন বলে ফ্রাইডে টাইমসের দাবি।
এদিকে ম্যাগাজিনটির এমন দাবিকে ‘কল্পিত কাহিনি’ বলে উল্লেখ করেছেন পাকিস্তান সরকারের এক মুখপাত্র। তিনি বলেন, পাকিস্তান ও সৌদি আরবের মধ্যে খুব ভালো সম্পর্ক বিদ্যমান।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..