খালেদা জিয়াকে নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক: অসুস্থ খালেদা জিয়াকে নিয়ে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

গতকাল দুপুরে রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলীয় চেয়ারপারসনের শারীরিক অবস্থা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি এ অভিযোগ করেন।

ফখরুল বলেন, ‘এ গুজবগুলো … কালকে আপনাদের বলছি, এর কোনো ভিত্তি নাই। আজকে (গতকাল) এখনও কিছু গুজব ছড়াচ্ছে। আমার মনে হয় যে এটা অত্যন্ত কৌশলে কোনো মহল এই গুজবগুলো ছড়াচ্ছে অসৎ উদ্দেশ্যে।’ কারা এই গুজব ছড়াচ্ছে, তা স্পষ্ট করেননি তিনি। ‘ম্যাডামের বিষয়ে আপনারা সরাসরি আমাকে ফোন করবেন, আমি আপনাদের জানাব,’ বলেন বিএনপি মহাসচিব।

গত মঙ্গলবার রাত থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় বসুন্ধরার এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে নানারকম ‘বিভ্রান্তিকর’ তথ্য প্রচার হয়। এতে সারাদেশের নেতাকর্মীরা ঢাকায় বিভিন্ন পরিচিতজনের কাছে টেলিফোন করে খোঁজখবর নিচ্ছিলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন সর্বশেষ অবস্থা কেমনÑজানতে চাইলে ফখরুল বলেন, ‘এখনও তিনি ওই অবস্থাতেই আছেন। স্টিল ইজ ভেরি ক্রিটিক্যাল। ডাক্তার সাহেবরা মনিটর করছেন, তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাদের পক্ষে যেটা সম্ভব, সেটা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা তারা করছে।’

সারাদেশে ‘রেড এলার্ট’ জারির গুঞ্জন নিয়েও ফখরুল বলেন, ‘এগুলো কোথায় পান আপনারা? রেড এলার্ট কোথায় পেলেন আপনারা? হোয়ার? এখানে সরকার কি কোনো বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে? আমি দেখিনি।’

এদিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে আট দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি এবং দলটির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো।

মির্জা ফখরুল জানান, বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ও সম্পাদকমণ্ডলীর নেতাদের সঙ্গে যৌথ সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে এসব কর্মসূচি পালন করা হবে। কর্মসূচিগুলোর মধ্যে রয়েছেÑ২৫ নভেম্বর সারাদেশে যুবদলের বিক্ষোভ সমাবেশ। ঢাকায় এ বিক্ষোভ সমাবেশ হবে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে।

২৬ নভেম্বর শুক্রবার জুমার নামাজের পর মসজিদে মসজিদে খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তির জন্য দোয়া মাহফিল হবে। একইভাবে মন্দির-প্যাগোডায় হবে বিশেষ প্রার্থনা।

২৮ নভেম্বর স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে সারা দেশে হবে বিক্ষোভ সমাবেশ। ঢাকায় এ বিক্ষোভ সমাবেশ হবে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে। ৩০ নভেম্বর বিএনপির উদ্যোগে বিভাগীয় শহরগুলোয় সমাবেশ। ১ ডিসেম্বর ছাত্রদলের উদ্যোগে সারাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ। ২ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা দলের উদ্যোগে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন। ৩ ডিসেম্বর কৃষক দলের উদ্যোগে ঢাকাসহ সারাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ। ৪ ডিসেম্বর মহিলা দলের উদ্যোগে মৌন মিছিল।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতারা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯১  জন  

সর্বশেষ..