দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আজ রোববার ঢাকা মহানগরের থানায় থানায় এবং সারা দেশের জেলা সদরে বিক্ষোভ করবে বিএনপি। গতকাল সকালে নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক যৌথ সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগরীতে থানায় থানায় এবং অন্যান্য মহানগর ও জেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হবে।’

দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ড নিয়ে কারাবন্দি খালেদা জিয়া এখন বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন। তার জামিনের আবেদন আপিল বিভাগে বিবেচনাধীন। গত বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিতে ব্যাপক চট্টগোল হয়েছিল, যাতে সর্বোচ্চ আদালতের কার্যক্রম বিঘ্নিত হয়।

যৌথ সভার সময় নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যের অবস্থান দেখা গেছে। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আপনারা দেখছেন এই বিজয় দিবসের মাসেও আমাদের অফিসের সামনে আবার সেই পূর্বাবস্থা ফিরে এসেছে। পুলিশ, র‌্যাব এবং ভয় দেখানোর যত রকম প্রক্রিয়া থাকে, তারা তা অবলম্বন করছে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিজয় দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে পাঁচ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল। কর্মসূচিগুলো হচ্ছে ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের দিন ভোরে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, কালো পতাকা উত্তোলন, মিরপুরে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ, ১৫ ডিসেম্বর বিকালে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে আলোচনা সভা, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের দিন সকালে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও পরে শেরেবাংলা নগরে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ, ১৭ ডিসেম্বর ঢাকা বিজয় শোভাযাত্রা এবং বিজয় দিবসের আলোচনা সভা।

বিজয় দিবসের দিন নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়সহ সারা দেশের দলীয় কার্যালয়ে আলোকসজ্জা করবে বিএনপি। দিবসটি উপলক্ষে তারা পোস্টারও প্রকাশ করবে।

কর্মসূচি ঘোষণার পর মির্জা ফখরুল বলেন, স্বাধীনতার প্রায় ৪৯ বছর পরও একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ আমরা পাইনি। বারবার একটি মহলের হাতে গণতন্ত্র নিহত হয়েছে।

১৯৭৫ সালে বাকশাল প্রতিষ্ঠার বিষয়টি তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা আবারও দেখছি, একই কায়দায় ক্ষমতার জোরে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও রাষ্ট্রীয় যন্ত্র ব্যবহার করে জনগণের ম্যান্ডেট ছাড়া ক্ষমতায় বসে আছে একটি দল। গণতন্ত্রের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তারা অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রেখেছে। আসুন, বিজয়ের মাসে আমরা এই শপথ গ্রহণ করি, আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব যে কোনো মূল্যে রক্ষা করব। এজন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। মির্জা ফখরুল ইসলামের সভাপতিত্বে যৌথ সভায় বিএনপির শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..