প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

গুগল হেডফোন

রাহাতুল ইসলাম: সম্প্রতি ওয়্যারলেস হেডফোন বাজারে ছেড়েছে গুগল। তবে এটি অন্য হেডফোনের মতো নয়, এটি গুগল পিক্সেল বাডস। গুগল পিক্সেল ২ ও পিক্সেল এক্সএল স্মার্টফোনের সঙ্গেই চালু করেছে এই হেডফোন। প্রযুক্তিবিদরা বলেছেন, এর অপেক্ষায় ছিল টেক স্যাভিরা।

পিক্সেল বাড শুধু ওয়ারলেস হেডফোন নয়, এর রয়েছে অনেক কাজ। ইয়ারফোনে থাকছে টাচ সেনসিটিভ কন্ট্রোল। নাড়াচাড়া দিয়েই এটি বুঝে ফেলে। ডান দিকের বাডে শুধু আঙুল ছোঁয়ালেই গান শুরু হবে বা থেমে যাবে। ডান দিকের বাডের পেছনের দিকে বা সামনের দিকে ঘষে দিলেই আওয়াজ কমবে বা বাড়বে। একটুক্ষণ প্রেস করে রাখুন, এসে যাবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট। এছাড়া ফোনকল রিসিভ করা কিংবা করার ক্ষেত্রেও কাজে দেবে এটি। অ্যাপেল এয়ারপডের মতোই এটি কাজ করে। একবার চার্জ দিলে টানা পাঁচ ঘণ্টা কাজ চলে যাবে। তবে সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে, এই পিক্সেল পড়ে অনুবাদ বা ট্রান্সলেশন অনেক সহজে করা যায়। একদম সায়েন্স ফিকশন গল্পের মতো বিষয়গুলো রয়েছে এই গুগলের হেডফোনে।

আসুন জেনে নিই, কীভাবে ট্রান্সলেশনের বিষয়টি কাজ করে। অনুবাদ করতে হলে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টকে হাঁক দিতে হবে। নির্দিষ্ট ভাষায় বলার জন্য সাহায্য চাইতে হবে। এরপর ব্যবহারকারী ইংরেজিতে সেটি বলুন। গুগল ট্রান্সলেট একে আপনার চাহিদামতো ভাষায় পাল্টে দেবে। ইয়ারফোনের সঙ্গে লাগানো স্পিকার থেকেই সেই অনুবাদ হওয়া ভাষা শোনা যাবে। একইভাবে ওই ধরনের চাহিদামতো ভাষা থেকেও ইংরেজিতে অনুবাদ করা যেতে পারে। শোনা যাবে ইয়ারফোন বা স্পিকারে। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, কমিউনিকেশনের ধারাটাই পাল্টে দিতে পারে গুগলের এই ইয়ারফোন। এই দুর্দান্ত হেডফোন বাজারে আসবে আগামী মাসে।