গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় শাবিপ্রবি কেন্দ্রে ৭৫৪২ পরীক্ষার্থী

প্রতিনিধি, শাবিপ্রবি: ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) কেন্দ্রে পরীক্ষা নিতে সব ধরনের পূর্বপ্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে শাবিপ্রবি প্রশাসন।

দেশের ২০টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবার গুচ্ছ (জিএসটি) ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এতে সিলেট বিভাগে বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক মিলিয়ে তিনটি ইউনিট মোট ৭৫৪২ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেবেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাবিপ্রবির প্রথম বর্ষ প্রথম সেমিস্টার ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাপ্লাইড সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলোজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মুশতাক আহমদ।

তিনি জানিয়েছেন, এবার গুচ্ছ (জিএসটি) ভর্তি ব্যবস্থায় ১৭ অক্টোবর ‘ক’ ইউনিটে বিজ্ঞান বিভাগের

৪৭১০, ২৪ অক্টোবর ‘খ’ ইউনিটে মানবিক বিভাগের ১৯৬৫ ও ১ নভেম্বর ‘গ’ ইউনিটে বাণিজ্য বিভাগের ৮৬৭ জন গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় শাবিপ্রবি কেন্দ্রে অংশ নেবেন।

এছাড়া নিজেদের প্রক্রিয়ায় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্যের বিভাগের দুটি ইউনিটের অধীনে ১৫৮৭ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারবেন। এছাড়া কোটায় মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য ২৮টি, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ২৮, শারীরিক প্রতিবন্ধী ১৪টি, পোষ্য ২০টি, বিকেএসপি ছয়টি এবং চা শ্রমিক কোটায় চারটি মিলিয়ে মোট ১০০টি আসন কোটার ক্ষেত্রে বরাদ্দ দেয়া হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়। সব মিলিয়ে মোট ১৬৮৭টি আসনে যোগ্যতা সাপেক্ষে ভর্তিচ্ছুরা ভর্তি হতে পারবে। তবে গত সেশনে আসন সংখ্যা ছিল ১৭০৩টি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড, আন্তর্জাতিক ইনফরমেটভ অলিম্পিয়াড, আন্তর্জাতিক পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াড ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক স্বর্ণ, রৌপ্য, ব্রোঞ্জ ও এমন মেডেলধারীদের ক্ষেত্রে জিএসটি ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়া ছাড়াই শর্ত সাপেক্ষে সুযোগ পাবে।

এছাড়া কোনো ভর্তিচ্ছুকে অর্থনীতি বিভাগে ভর্তি হতে হলে জিএসটি ভর্তি পরীক্ষায় গণিতে ৪০ শতাংশ ও ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হতে হলে ইংরেজিতে ৪০ শতাংশ নাম্বার পেতে হবে। বিদেশি নাগরিকদের ক্ষেত্রে এইচএসসি সমমানের পরীক্ষায় বাংলাদেশি মানদণ্ডে ৭০০ নাম্বার পেতে হবে। বিজ্ঞপ্তিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রে পূর্ববর্তী বছরগুলোয় ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা গেলেও এবার তা ব্যবহার করা যাবে না। এছাড়া মোবাইল ফোনসহ যে কোনো ইলেকট্রিক ডিভাইস-সংবলিত ঘড়ি ও কলম ব্যবহার করা সম্পূর্ণ নিষেধ বলে জানিয়েছেন শাবিপ্রবির প্রথমবর্ষ প্রথম সেমিস্টার ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি। প্রস্তুতির বিষয়ে শাবিপ্রবি উপাচার্য ও গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কোর কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষায় যে কেনো ধরনের ডিজিটাল জালয়াতি ঠেকাতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বদ্ধ পরিকর। জিএসটি ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি পুরোপুরি সম্পন্ন। ইতোমধ্যে, এ বছর স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা শতভাগ সফলতার সঙ্গে হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষায় যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমরা সর্বদা প্রস্তুত।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯০  জন  

সর্বশেষ..