প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

গেইনারে বস্ত্র খাতের চার কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক: গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দর বাড়ার শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে চার কোম্পানি হলো বস্ত্র খাতের। এগুলো হলো তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, এইচআর টেক্সটাইল লিমিটেড, শাশা ডেনিমস লিমিটেড ও আরগন ডেনিমস লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য ।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, গতকাল তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ারদর ৯ দশমিক ২৬ শতাংশ বেড়ে শীর্ষ দর বাড়ার তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল। প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১৯ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ২০ টাকা। দিনজুড়ে কোম্পানিটির ১০ লাখ ৫৮ হাজার ৭২৯টি শেয়ার ৪৯৫ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি সাত লাখ ৫৮ হাজার টাকা। শেয়ারদর সর্বনিম্ন ১৮ টাকা ৭০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২০ টাকায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ১৩ টাকা থেকে ২৬ টাকা ৫০ পয়সায় ওঠানামা করে।

১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৬৩ কোটি ১৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৮৬ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। কোম্পানিটির ছয় কোটি ৩১ লাখ ৬৮ হাজার ৫২০টি শেয়ার রয়েছে।

ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৫৫ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ২০ দশমিক ৯৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ২০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

গতকাল এইচআর টেক্সটাইল লিমিটেডের শেয়ারদর আট দশমিক ১৫ শতাংশ বেড়ে শীর্ষ দর বাড়ার তালিকায় চতুর্থ স্থানে ছিল। ওইদিন প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ২৫ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ২২ টাকা ৫০ পয়সা। দিনজুড়ে কোম্পানিটির পাঁচ লাখ ২৫ হাজার ৩১৫টি শেয়ার ৪৪৫ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৩০ লাখ ১৪ হাজার টাকা। শেয়ারদর সর্বনিম্ন ২৩ টাকা ৫০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২৫ টাকা ৪০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ১৬ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ২৭ টাকায় ওঠানামা করে।

১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ১৫ কোটি ৬১ লাখ টাকা। কোম্পানিটির দুই কোটি ৫৩ লাখ শেয়ার রয়েছে।

ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৫১ দশমিক ০৪ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ১৫ দশমিক ২৭ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৩৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

শাশা ডেনিমসের শেয়ারদর ৫ দশমিক ৬৫ শতাংশ শেয়ারদর বেড়ে শীর্ষ দর বাড়ার তালিকায় নবম স্থানে ছিল। গতকাল প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৭২ টাকায়  হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৭১ টাকা। দিনজুড়ে কোম্পানিটির ৪৬ লাখ ২৩ হাজার ৯০টি শেয়ার তিন হাজার ৩৯১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩২ কোটি ৩১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৬৫ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৭৩ টাকা ৭০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ৩৩ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ৭৩ টাকা ৭০ পয়সায় ওঠানামা করে।

২২৫ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১১২ কোটি ৭৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২৬৮ কোটি ১৫ লাখ টাকা। কোম্পানিটির ১১ কোটি ২৭ লাখ ৮৭ হাজার ৬৩০টি শেয়ার রয়েছে।

ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৪৬ দশমিক ৫২ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ১৭ দশমিক ৭৫ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ৮ দশমিক ০৬ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৭ দশমিক ৬৭ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

আরগন ডেনিমস লিমিটেডের শেয়ারদর গতকাল ৫ দশমিক ৫০ শতাংশ শেয়ারদর বেড়ে শীর্ষ দর বাড়ার তালিকায় দশম স্থানে ছিল। এদিন প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৩০ টাকা ৯০ পয়সায়  হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৩০ টাকা ৭০ পয়সা। দিনজুড়ে কোম্পানিটির ৪৬ লাখ ৬৯ হাজার ৫৪৯টি শেয়ার দুই হাজার ৭৮৪ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১৪ কোটি ১০ লাখ ৮০ হাজার টাকা। শেয়ারদর সর্বনিম্ন ২৯ টাকা ৩০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৩১ টাকায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ২১ টাকা থেকে ৩২ টাকায় ওঠানামা করে।

১৫০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৯৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৫১ কোটি ১১ লাখ টাকা। কোম্পানিটির ৯ কোটি ৯৩ লাখ ৬০ হাজার শেয়ার রয়েছে।

ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৪১ দশমিক ৮৫ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ৩০ দশমিক ৬৮ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে এক দশমিক ৬৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৫ দশমিক ৮২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।