স্পোর্টস

গোলাপি বলে নতুন আশায় বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক: চার বছর আগে গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্ট দেখেছিল বিশ্বক্রিকেট। এর মধ্যে টেস্ট খেলুড়ে বেশিরভাগ দেশই পেয়েছে এমন ম্যাচের স্বাদ। যা আজ পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশও। কলকাতার ইডেন গার্ডেনে ঐতিহাসিক এ ম্যাচে দুপুর দেড়টায় ভারতের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। নতুন এ পথচলায় ভালো কিছুর আশা করছে মুমিনুল হকের দল। গতকাল ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে সফরকারীদের অধিনায়কের কণ্ঠে ছিল এমনই সুর।

গোলাপি বলে দিবারাত্রির টেস্ট ঘিরে উৎসবমুখর এখন কলকাতা। টেস্টের প্রথম ৪ দিনের টিকিট এরই মধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। তাতে ভারতের সর্ববৃহৎ ভেন্যুতে অন্য এক উৎসবের আবহ তৈরি হয়েছে। অবশ্য এতে ভেসে যেতে চাইছে না বাংলাদেশ। সফরকারীদের লক্ষ্য, ইন্দোর টেস্টের হতাশা ভুলে ইডেনের ঐতিহাসিক টেস্টকে স্মরণীয় করা। এজন্য মাঠের ক্রিকেটে ভালো করতে দৃষ্টি রাখছে মুমিনুল হকের দল।

অনেকটা আচমকাই এবার দিবারাত্রির টেস্ট খেলতে প্রস্তাব পায় বাংলাদেশ। ভারত সফরে যাওয়ার আগের দিন সন্ধ্যায় এ টেস্ট খেলতে সম্মতি জানায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যে কারণে গোলাপি বলে কোনো অনুশীলন করার সময় পায়নি টিম টাইগার্স। প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামারও সুযোগ হয়নি সফরকারীদের। তাই আজ এ টেস্ট ম্যাচ মুমিনুলের কাছে অনেকটা ধাঁধার মতোই মনে হতে পারে। তবে ব্যাপারটি মোটেও স্বীকার করেননি টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক। উল্টো এ বাঁহাতির কণ্ঠে প্রথম গোলাপি বলের টেস্টে ভালো কিছু করার বাড়তি প্রত্যায় শোনা গেছে।

ইন্দোর টেস্টে ভারতের বিপক্ষে কোনো প্রতিরোধই গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। উল্টো ওই ম্যাচ তিন দিনেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। টাইগারদের এ ধরনের পারফরম্যান্সের কারণে কলকাতার সাংবাদিকদের ধারণা, ইডেন টেস্ট তিন দিনের বেশি যাবে না! গতকাল সংবাদ সম্মেলনে প্রসঙ্গটা উঠতেই বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক না হেসে পারলেন না, ‘একজন খেলোয়াড় হিসেবে আমি বলতে পারি না খেলা তিন দিনে শেষ হবে! ঘাস থাকলেই যে খেলা তিন দিনে শেষ হবে িএমন কোনো কথা নেই। হয়তো ঘাস থাকার পরও শক্ত উইকেটের জন্য বল ভালোভাবে ব্যাটে আসতে পারে। কিউরেটর স্পোর্টিং উইকেটের কথা বলেছেন। আমার মনে হয় স্পোর্টিং উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো।’

উপমহাদেশে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দিবারাত্রির গোলাপি বলের টেস্ট। স্বাভাবিকভাবেই এ ম্যাচ নিয়ে দর্শকের মধ্যে তৈরি হয়েছে অন্যরকম উম্মাদনা। ব্যাপারটি কি মুমিনুলের কাছে চাপ মনে হচ্ছে? ‘বাইরে কি হচ্ছে-না হচ্ছে, পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে এটা আমাদের প্রভাবিত করবে বলে মনে হয় না। এ চাপ আসা উচিতও নয়। যে যার কাজ ঠিকমতো করছি। চাপ আসার কোনো সুযোগ নেই।’

গোলাপি বল আর ইডেন গার্ডেনের উইকেট বাংলাদেশের আরেকটি বিব্রতকর হারের আভাস দিচ্ছে। তবে খেলা শুরুর আগেই নিজেদের পিছিয়ে রাখতে রাজি নন মুমিনুল, ‘আমার মনে হয় প্রতিটি বলে শতভাগ মনোযোগী থাকতে হবে। কিছু কিছু শট সিলেকশন নিয়ে দুর্ভাবনা আছে। এ ব্যাপারে আমাদের আরও মনোযোগী হতে হবে এবং মানসিকভাবে আরও বেশি প্রস্তুত থাকতে হবে। ওদের তিনজন খুব ভালো পেসার আছে, তাদের সামলাতে আমাদের ধৈর্য ধরতে হবে।’

প্রথম টেস্টে একজন পেসার কম নিয়ে খেলেছিল বাংলাদেশ। এজন্য চড়া মাশুলও দিতে হয়েছিল সফরকারীদের। তবে আজ আর সেই ভুল করছে না সফরকারীরা। একাদশে দেখা যাবে তিন পেসার। এজন্য একজন স্পিনার কম থাকতে পারে। যদিও গতকাল একাদশ নিয়ে তেমন কিছু বলেননি মুমিনুল। তবে টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রে জানা গেছে, মোস্তাফিজুর রহমান ও আল-আমিন খেলতে পারেন। এজন্য ইবাদত হোসেন ও একজন স্পিনার বাদ পড়তে পারেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..