স্পোর্টস

গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

ইমার্জিং এশিয়া কাপ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : গত দুই ম্যাচের মতোই সুমন খান ও মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদি বল হাতে আলো ছড়ান। বাংলাদেশও পেয়ে যায় সহজ লক্ষ্যমাত্রা। তাই স্বাগতিকদের জিততে কোনো বেগই পেতে দেননি অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ও মোহাম্মদ নাঈম শেখ। এ নিয়ে এ টুর্নামেন্টে টানা তিন ম্যাচ শেষে হাসিমুখে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। শুধু তা-ই নয়, এর ফলে ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালের টিকিটও নিশ্চিত করেছে লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা। 

‘বি’ গ্রুপে নিজেদের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে গতকাল নেপালকে ৮ উইকেটে উড়িয়ে দেয় বাংলাদেশ ইমার্জিং দল। টস জিতে আগে বল হাতে শুরু থেকেই সুমন খান নেপাল ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষা নেন। মাঝে আফ্রিদির ঘূর্ণিতে সফরকারীরা হয়ে পড়ে দিশাহারা। এ সুযোগে ৪৪.৩ ওভারে প্রতিপক্ষকে মাত্র ১৩৮ রানে গুটিয়ে দেয় স্বাগতিকরা। জবাব দিতে নাজমুল (৫৯) ও নাঈমের (৪৫) ব্যাটে ভর করে ১৫৬ বল আর ৮ উইকেট হাতে রেখে জিতে যায় লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা।

সৌম্য সরকার গতকাল ব্যাট হাতে তেমন সুবিধা করতে পারেননি। ১১ রান করে ফিরে যান সাজঘরে। তবে তার অভাব বুঝতে দেয়নি নাঈম-নাজমুলের দ্বিতীয় উইকেট জুটি। তারা দুজনে ৭৯ রানের জুটিতে জয়ের ভিত গড়ে দেন স্বাগতিকদের। এরপরই নাঈম ফেরেন ৫৬ বলে ৬টি চারে ৪৫ রান করে। তবে এক প্রান্ত আগলে রেখে দলকে জিতিয়েই ফেরেন নাজমুল। বাঁহাতি এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ৫৬ বলে ৬টি চার ও দুই ছয়ে করেন ৫৯ রান। ১৫ বলে দুটি চার ও এক ছয়ে তার সঙ্গে ১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন ইয়াসির আলী।

এর আগে বল হাতে শুরুটা মোটামুটি ছিল বাংলাদেশের। সে সুবাদে নেপালের ৩৩ রানের সময় জোড়া আঘাত করেন সুমন। এক রানের ব্যবধানে ফেরান দুই ওপেনারকে। এরপর প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের ঘূর্ণিজাদু দেখান মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদি। যে কারণে সফরকারীদের কোনো ব্যাটসম্যান নিজেদের ঠিক মেলে ধরতে পারেননি। ৬৩ বলে ৪টি চারে দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৩৮ রান করেন সম্পাল কামি।

সুমন নেন ২৯ রানে ৩ উইকেট। সমান রান খরচায় ৩ উইকেট নেন আফ্রিদিও। দুটি করে উইকেট নেন তানভির ইসলাম ও মেহেদি হাসান।

‘এ’ গ্রুপের রানার্সআপ দলের বিপক্ষে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আগামীকাল লড়বে বাংলাদেশ। ওই ম্যাচ জিতলেই ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত হবে স্বাগতিকদের। এখন সে লক্ষ্য পূরণের অপেক্ষায় লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নেপাল ইমার্জিং দল: ৪৪.৩ ওভারে ১৩৮ (সম্পাল ৩৮; সুমন ৮.৩-০-২৯-৩, মেহেদি রানা ৬-০-২৫-০, তানভির ১০-২-২৬-২, আফ্রিদি ১০-০-২৯-৩, মেহেদি হাসান ৯-১-২৫-২, সৌম্য ১-০-২-০)।

বাংলাদেশ ইমার্জিং দল: ২৪ ওভারে ১৪০/২ (নাঈম ৪৫, সৌম্য ১১, শান্ত ৫৯*, ইয়াসির ১৮*; কারান ১/১১, শুশান ১/২৪)।

ফল: বাংলাদেশ ইমার্জিং দল ৮ উইকেটে জয়ী।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..