দুরে কোথাও

ঘুরে আসি রংপুর

শীতের এ সময় দূরে কোথাও বেড়াতে যেতে কার না ভালো লাগে। শহরের কোলাহল ছেড়ে একটু দূরে যেতে চান অনেকে। তাদের কাছে এমনই একটি চমৎকার গন্তব্য হতে পারে রংপুর।

এ জেলায় দেখার মতো অনেক কিছু রয়েছে। এর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করা যায়, তিস্তা নদী, জাদুঘর ও ভিন্নজগৎ পার্কের কথা। ইতিহাস থেকে জানা যায়, এ অঞ্চলের মাটি খুব উর্বর ছিল। এ কারণে ব্রিটিশ আমলে এখানে প্রচুর নীল চাষ হতো। তখন থেকে স্থানীয় অধিবাসীরা এ জেলাকে রঙ্গ বলেই জানত। কালের বিবর্তনে রঙ্গ থেকেই রংপুর নামকরণ করা হয়েছে। কালক্রমে বিভাগের মর্যাদা পেয়েছে রংপুর।

সবুজে ঘেরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর রংপুর। রংপুর প্রসঙ্গে অবধারিতভাবে চলে আসে বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের নাম। ১৮৮০ সালে ৯ ডিসেম্বর এ মহীয়সী নারী এখানে জন্মগ্রহণ করেন, মৃত্যুবরণ করেন ১৯৩২ সালের ৯ ডিসেম্বর। আজ থেকে প্রায় ১০০ বছর আগে তিনি যে চিন্তাভাবনা করেছিলেন, যে পথ দেখিয়েছিলেন, তা আজও আমাদের অনুসরণীয় হয়ে রয়েছে। তার স্মৃতিকে সমুজ্জ্বল করে রাখতে সুবিধাবঞ্চিত নারীদের পুনর্বাসন ও তার রচিত গ্রন্থের গবেষণার জন্য এখানে রয়েছে রোকেয়া স্মৃতিকেন্দ্র। প্রতি বছর ৯ থেকে ১১ ডিসেম্বর এখানে রোকেয়া মেলার আয়োজন করা হয়। তার নামে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়। এখানে রয়েছে তাজহাট জমিদারবাড়ি, যা জাদুঘরে রূপান্তরিত করা হয়েছে। তৎকালীন রত্ন ব্যবসায়ী মান্নালাল জমিদারবাড়িটি নির্মাণ করেন। ১৮০০ শতাব্দীর শেষদিকে এর নির্মাণকাজ শেষ হয়। ১৯৯৫ সালে এটিকে প্রত্নসম্পদ হিসেবে গণ্য করা হয়। ওই সময়ের জমিদাররা ঘরবাড়ি নির্মাণের ক্ষেত্রে জমি ও পরিবেশের যেন ক্ষতি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতেন।

শহর থেকে তিন মাইল দূরে রয়েছে কারমাইকেল কলেজ। এখানের শতরঞ্জী পল্লিতে পাওয়া যায় হরেক রকম কার্পেট। কারিগররা নিপুণ হাতে তৈরি করেন নানা ধরনের কার্পেট। বেড়াতে গিয়ে এ ধরনের কার্পেট কেনাকাটা করতে পারেন এবং প্রিয়জনদের জন্য উপহার হিসেবে নিয়ে আসতে পারেন।

রংপুরে রয়েছে বহুল আলোচিত তিস্তা নদী। ২০০১ সালে গঙ্গচড়া উপজেলার ঘরাইয়া গঙ্গীপুর এলাকার নিরিবিলি পরিবেশে গড়ে উঠেছে ভিন্নজগৎ বিনোদন কেন্দ্র। ভ্রমণপিপাসুদের আকর্ষণীয় স্থানে পরিণত হয়েছে এ বিনোদন কেন্দ্রটি। গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ও আধুনিকতার ছোঁয়ায় বেসরকারি উদ্যোগে নির্মাণ করা হয়েছে এটি। এখানে পর্যটকদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা আছে। রংপুরের অনেক স্থানে সন্ধ্যার পর পালাগানের আসর বসে। দূরদূরান্ত থেকে মানুষ এ গান উপভোগ করেন। এসব কারণে ঘুরে আসতে পারেন রংপুর থেকে।

  আইরিন ফাতেমা

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..