প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে সমন্বয়হীনতায় ক্যাবের ক্ষোভ

প্রধানমন্ত্রীর সদিচ্ছায় চট্টগ্রাম মহানগরের জলাবদ্ধতা নিরসনে বর্তমানে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ৪টি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এর মধ্যেই একটু বৃষ্ট্রিতেই পুরো নগরী তলিয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘ সময় ধরে এসব প্রকল্প চলমান হলেও কাজের অগ্রগতি তেমন না থাকায় নগরবাসীর ভোগান্তি ক্রমাগতই বাড়ছে। অপরদিকে একটু বৃষ্টি হলেই সৃষ্ট জলাবদ্ধতার এ দুর্ভোগের জন্য নগরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সেবা সংস্থাগুলো, বিশেষ করে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও পানি উন্নয়ন বোর্ড এক অপরের ওপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে।

জলাবদ্ধতা নিরসনে মেগা প্রকল্পের ধীরগতি ও নানা অসঙ্গতির কারণে বছরের পর বছর জলাবদ্ধতার দুর্ভোগে পোহাতে হচ্ছে। অল্প বৃষ্টিতেই পানি জমে পুরো নগরী তলিয়ে যাচ্ছে। এ কারণে জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগ ও বিপুল বরাদ্দের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত হচ্ছে না।

এ অবস্থায় জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নেতৃত্বে সুষ্ঠু সমন্বয় নিশ্চিত, কাজের গুণগত মান নিশ্চিতে নাগরিক পরীবিক্ষণ ও দীর্ঘসূত্রতা বন্ধ করে প্রকল্পের সুফল নগরবাসী যেন পান সে বিষয়টি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন দেশের ক্রেতা-ভোক্তাদের স্বার্থ সংরক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম বিভাগ ও মহানগর কমিটি।

গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ক্যাব কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, মহানগর সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, সাধারণ সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, দক্ষিণ জেলা সভাপতি আবদুল মান্নান প্রমুখ এসব দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্পের জন্য খালগুলোতে বাঁধ দেয়া হয়েছে। এ বাঁধ সরানো হয়নি। জোয়ারের পানি প্রবেশরোধে রেগুলেটর বসানো কথা ছিল। কিন্তু এখনও তা হয়নি। এসব কারণেই চট্টগ্রামে অল্প বৃষ্টিতেই পুরো নগরী পানিতে তলিয়ে যায়। সিটি করপোরেশনের এর পুরো দায়ভার নিতে হবে। কোনো কর্তৃপক্ষ জবাবদিহিতার আওতায় আসতে না চাইলে নগরবাসীর কাছে বিষয়টি পরিষ্কার করতে হবে। বিজ্ঞপ্তি।