করপোরেট কর্নার শিল্প-বাণিজ্য

চট্টগ্রামে সালাম এয়ারের যাত্রীসেবা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম: ওমানভিক্তিক এয়ারলাইনস সংস্থা সালাম এয়ারের মাস্কাট-চট্টগ্রাম রুটে যাত্রী পরিবহন শুরু হয়েছে। মাস্কাট থেকে ১৫৩ জন যাত্রী নিয়ে গত সোমবার রাত পৌনে ৯টায় চট্টগ্রাম হযরত শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে নতুন এয়ারবাসটি। রাত সাড়ে ৯টায় ১৩৫ জন যাত্রী এবং ১৫৩ কেজি কার্গোপণ্য নিয়ে মাস্কাটের উদ্দেশে ছেড়ে যায় ফিরতি ফ্লাইট।
চট্টগ্রামে সালাম এয়ারের ২৩তম রুটে যাত্রীসেবা শুরু উপলক্ষে বিমানবন্দরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ওমানের রাষ্ট্রদূত তায়েব সেলিম আল আলাওয়ি, সালাম এয়ারের ডিরেক্টর (কমার্শিয়াল) মাজিম আল সালমান, হেড অব সেলস মোহাম্মদ আল বিমৌকি, শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক উইং কমান্ডার এবিএম সরওয়ার ই জাহান, সালাম এয়ারের বাংলাদেশ কান্ট্রি ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন।
উদ্বোধনী ফ্লাইটে আসা চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার ইমরান ও আবদুল মালেক জানান,
সালাম এয়ারের যাত্রীসেবা নিয়ে তারা সন্তুষ্ট। ভবিষ্যতে যাত্রীসেবার মান ধরে রাখার জন্য সালাম এয়ারের প্রতি আহ্বান জানান তারা।
মাস্কাট থেকে আসা আরেক যাত্রী শিপন নাথ জান, যাত্রীসেবা ভালো হলেও বিমানে খাবারের কোনো ব্যবস্থা ছিল না। বিষয়টি তাদের জানা ছিল না। প্রয়োজনে বিমানের টিকিটের মূল্যের সঙ্গে আরও পাঁচ রিয়াল বাড়িয়ে খাবার সরবরাহ করলে যাত্রীদের জন্য ভালো হতো।
অনুষ্ঠানে সালাম এয়ারের ডিরেক্টর (কমার্শিয়াল) মাজিম আল সালমান বলেন, মাস্কাটের শ্রমবাজারে প্রচুর বাংলাদেশি কাজ করে। এর বড় একটি অংশ চট্টগ্রামে। সেই বিবেচনায় চট্টগ্রামের যাত্রীদের সেবায় তারা সরাসরি মাস্কাট চট্টগ্রাম রুটে সেবা শুরু করে। প্রথম দিকে সপ্তাহের রবি, সোম, বুধ ও শুক্রবার ফ্লাইট পরিচালনা করলেও শিগগিরই সপ্তাহের প্রতিদিন যাত্রীসেবা শুরু করবে সালাম এয়ার।
সালাম এয়ারের বাংলাদেশ কান্ট্রি ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন বলেন, বাংলাদেশে ঢাকার পর চট্টগ্রামে শুরু হলো তাদের যাত্রী সেবা। আগামী এক বছরের
মধ্যে সিলেটের সঙ্গে সরাসরি ফ্লাইট শুরু করার বিষয়টি পরিকল্পনায় আছে।

সর্বশেষ..