প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

চাঁদপুরে অস্ত্র-গুলিসহ পাঁচ নৌ ডাকাত আটক

প্রতিনিধি, চাঁদপুর: চাঁদপুরে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পদ্মা নদী থেকে পাঁচ নৌ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল সকালে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নৌ পুলিশ চাঁদপুর অঞ্চলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান।

আটককৃতরা হলেনÑমুন্সীগঞ্জ জেলার মো. আক্তার হোসেন ও মোহাম্মদ ইকবাল মুন্সি ওরফে সুমন, মো. আবুল বাশার, শাকিল দেওয়ান ও মো. ইয়ামিন। তাদের কাছ থেকে ২টি পাইপগান, সিসার তাজা কার্তুজ ৭টি, রামদা ৮টি, দেশীয় দা ১টি, স্ক্রডাইভার ১টি, সাবল ২টি ও বিভিন্ন মডেলের ২০টি মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়।

সূত্রমতে, বৃহস্পতিবার বিকালে পদ্মা নদীতে স্পিডবোটে ১২-১৩ জন ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে পুলিশ। সংবাদের ভিত্তিতে নৌ পুলিশ ডাকাতদের ধাওয়া করে। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। পরে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে শটগান থেকে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ডাকাতদল পদ্মা নদীর মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং থানার গাঁওদিয়া বাজার সংলগ্ন নদীর পাড়ে তাদের স্পিডবোট রেখে লাফিয়ে তীরে উঠে দৌড়ে পাটক্ষেতে আত্মগোপন করে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় তাৎক্ষণিক মাঝিরঘাট নৌ পুলিশ সদস্যরা অভিযানে অংশ নেয়। পরে পাটক্ষেত তল্লাশি করে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ডাকাত আক্তার হোসেন ও ইকবাল মুন্সি ওরফে সুমনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে গ্রেপ্তারকৃতদের তথ্যের ভিত্তিতে পদ্মা নদীর তীরবর্তী পাটক্ষেত, ধইঞ্চা ক্ষেত, ডোবা নালার কচুরিপানায় আত্মগোপন করে থাকা ককেয়জন ডাকাতকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে মো. আবুল বাশারকে ১টি পাইপগান ও ৪টি কার্তুজসহ গ্রেপ্তার করা হয়। ভোররাত সাড়ে ৪টায় ডাকাত মো. শাকিল দেওয়ানকে ১টি পাইপগান ও ৩টি কার্তুজসহ গ্রেপ্তার করা হয়। ভোর ৫টায় পূর্ব পালগাঁও-সংলগ্ন ডোবা হতে সর্বশেষ ডাকাত মো. ইয়ামিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। চাঁদপুরের নৌ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে অভিযানে অংশ নেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. বেলায়েত হোসেন শিকদার, এসআই জহিরুল হক, এএসআই মো. শহিদুল ইসলাম, কনস্টেবল মো. আবুল বাশার, মো. রেজাউল ইসলাম, মেজবাহ উদ্দিন ও এসএম ইসরাফিল হোসেন।

চাঁদপুরের নৌ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান জানিয়েছেন, বিকালে পদ্মা নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। সারারাত অভিযান শেষে ২টি পাইপগান ও দেশীয় অস্ত্রসহ ৫ জন ডাকাতকে গ্রেপ্তার করা হয়। এদের মধ্যে ২ জন একাধিক মামলার আসামি। বাকি অভিযুক্তদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।