বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

চামড়াশিল্পকে রফতানি খাতে দ্বিতীয় স্থানে দেখতে চাই

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, বাংলাদেশে এখন বিনিয়োগের উপযুক্ত পরিবেশ বিরাজ করছে। সরকার বিনিয়োগকারীদের সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছে। বাংলাদেশে চামড়াশিল্পে বিনিয়োগকারীরা লাভবান হবেন। দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বাংলাদেশে উপযুক্ত স্থান। তিনি বলেন, আমরা চামড়াশিল্পকে রফতানি খাতে তৈরি পোশাকের পরেই দ্বিতীয় স্থানে দেখতে চাই। ২০২১ সালে চামড়া খাতে বাংলাদেশের রফতানি পাঁচ বিলিয়ন ডলার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও, আমরা আরও বেশি দেখতে চাই।

গতকাল রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় বাংলাদেশ পাদুকা প্রস্তুতকারক সমিতি আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ‘সপ্তম লেদারটেক বাংলাদেশ-২০১৯’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে তৈরি কোনো পণ্যের মানের সঙ্গে কোনো কম্প্রমাইজ নেই। পণ্যের উন্নত মান এবং মূল্য কমের মাধ্যমে বিশ্ববাজারে স্থান করে নিতে হবে। বেসরকারি যে কোনো উদ্যোগের সঙ্গে সরকারের সহযোগিতা থাকবে। চামড়াশিল্পের কাঁচামাল ও কম মূল্যে আমাদের শ্রমশক্তি আছে। এ শিল্পকে বিশ্ববাসীর কাছে জনপ্রিয় করে তোলা সম্ভব।

মন্ত্রী বলেন, চামড়া শিল্পের উন্নয়নে আমাদের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। এ সম্ভাবনাকে আমরা কাজে লাগাতে পারি। আমরা বিশ্বাস করি বিশ্বের বড় বড় কোম্পানিগুলো বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে এগিয়ে আসবে। তখন এ খাতের চিত্র অন্যরকম হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত দেশের বিভিন্ন স্থানে ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে উঠছে। এগুলোতে বিনিয়োগ করতে অনেক দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এসেছে। বাংলাদেশের চামড়াজাত পণ্যের চাহিদা বিশ্ববাজারে দিন দিন বাড়ছে। সঠিকভাবে গবেষণা করে, প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করলে আমরা চামড়া খাতে সফলতা অবশ্যই পাব।

উল্লেখ্য, এবার মেলায় বিশ্বের ২০টি দেশের তিন শতাধিক প্রতিষ্ঠান ফিনিস লেদার, ট্যানিং লেদারের জন্য মেশিনারিজ, ম্যানুফ্যাকচারিং ফুটওয়্যার, চামড়াজাত পণ্যসহ এর সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হচ্ছে। দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ, চীন, কোরিয়া তুরস্ক, মিসর, ভিয়েতনাম, যুক্তরাজ্য, শ্রীলঙ্কা, ইতালি, জার্মানি, সিঙ্গাপুর, জাপান, তাইওয়ান হংকং ও পাকিস্তান।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. জাফর উদ্দিন, বাংলাদেশ লেদার ফুটওয়্যার অ্যান্ড লেদারগুডস ইন্টারন্যাশনাল সোর্সিং শো-২০১৯-এর আহ্বায়ক সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর, লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মো. সাইফুল ইসলাম। 

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আসক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন্স প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক নন্দ গোপাল। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পাদুকা প্রস্তুতকারক সমিতির প্রেসিডেন্ট শাহীন খান।

তিন দিনের এ মেলায় প্রধান পৃষ্ঠপোষকতা করছে লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারারস অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ। এছাড়া অন্যান্য পৃষ্ঠপোষকদের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার, লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ টেনার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ পাদুকা প্রস্তুতকারক সমিতি।

সর্বশেষ..