প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

চার কোম্পানির লভ্যাংশ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: চার কোম্পানি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে গতকাল। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সুত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সময় কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে তিন টাকা ১০ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ১৯ টাকা ২২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল যথাক্রমে দুই টাকা ৭৭ পয়সা ও ১৮ টাকা ৪২ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ৩০ মার্চ বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৪ মার্চ। এজিএমের সময় ও স্থান পরে জানানো হবে। উল্লেখ্য, ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ২০০০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ২০১৫ সালে কোম্পানিটি ১৫ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেয়। এ সময় ইপিএস ছিল দুই টাকা টাকা ৯১ পয়সা এবং এনএভি ১৮ টাকা ৪২ পয়সা। কর-পরবর্তী মুনাফা হয় ২০৪ কোটি ৬৩ লাখ টাকা।

কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন এক হাজার কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন ৭৩৮ কোটি ২৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৫৫৭ কোটি ২১ লাখ টাকা।

গতকাল কোম্পানির শেয়ারদর দশমিক ৪৬ শতাংশ বা ১০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ২১ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ২২ টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর ২১ টাকা ৮০ পয়সা থেকে ২২ টাকা ৫০ পয়সায় হাতবদল হয়। ওইদিন ৮৯ লাখ ১৩ হাজার ৫৭৭টি শেয়ার মোট এক হাজার ৭৪৯ বার হতবদল  হয়, যার বাজারদর ১৯ কোটি ৬১ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। গত এক বছরে শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১১ টাকা ৪০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২৩ টাকা ২০ পয়সায় লেনদেন হয়।

আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড: ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটি ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সময় ইপিএস হয়েছে সাত টাকা আট পয়সা এবং এনএভি ৩৫ টাকা ৫৬ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে পাঁচ টাকা ৮১ পয়সা ও ৩০ টাকা ৯৭ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ৩০ মার্চ সকাল ১০টায় রেডিসন ব্ল– ঢাকা ওয়াটার গার্ডেন হোটেল, বিমানবন্দর সড়ক, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, ঢাকায় এজিএম অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৪ মার্চ।

১৯৯২ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ‘এ’ ক্যাটাগরির এ কোম্পানি। গতকাল কোম্পানিটির ৪০ কোটি ৪৪ লাখ ৫১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে ৫৫ লাখ ৯৬ হাজার ৬৪৬টি শেয়ার মোট দুই হাজার ৯৫৬ বার হাতবদল হয়। ওইদিন শেয়ারদর দুই দশমিক ২৮ শতাংশ বা এক টাকা ৬০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৭১ টাকা ৮০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সর্বশেষ দর দাঁড়ায় ৭২ টাকায়। দিনজুড়ে শেয়ারটির দর ৭১ টাকা থেকে ৭৩ টাকা ৪০ পয়সায় ওঠানামা করে। গত এক বছরে শেয়ারদর ৪৭ টাকা ২০ পয়সা থেকে ৭৫ টাকা ১০ পয়সায় ওঠানামা করে। ২০১৫ সালে কোম্পানিটি ২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল। এ সময় ইপিএস হয় পাঁচ টাকা ৮১ পয়সা এবং এনএভি ৩০ টাকা ৯৭ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা ছিল ১৪৫ কোটি ৯২ লাখ ২০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন এক হাজার কোটি টাকা।  পরিশোধিত মূলধন ৩৭৭ কোটি পাঁচ লাখ ১০ হাজার টাকা।  রিজার্ভের পরিমাণ ৫২৬ কোটি ৮৫ লাখ টাকা।

প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড: ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য কোনো  ডিভিডেন্ড ঘোষণা দেয়নি কোম্পানিটি। ওই বছর কোম্পানির  শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে তিন টাকা ৪৮ পয়সা এবং এনএভি হয়েছে ১০ টাকা ২১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে এক টাকা ৫৩ পয়সা ও ১৩ টাকা ৬৯ পয়সা। আগামী ৩০ মার্চ সকাল সাড়ে ১০টায় পিএসসি কনভেনশন হল, পুলিশ স্টাফ কলেজ, মিরপুর-১৪, ঢাকায় এজিএম অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৪ মার্চ।

প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য ১৩ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সময় ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৮২ পয়সা এবং এনএভি ১৬ টাকা ৩৯ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে দুই টাকা ১১ পয়সা ও ১৫ টাকা ৮৩ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ৩০ মার্চ বার্ষিক সাধারণ সভা সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (এমআইএএম), ৬৩ নিউ ইস্কাটন, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট আগামী ১৪ মার্চ।