বিশ্ব সংবাদ

চাহিদা মেটাতে উৎপাদন সক্ষমতা বাড়াচ্ছে এয়ারবাস

শেয়ার বিজ ডেস্ক: চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় ইউরোপের উড়োজাহাজ নির্মাতা এয়ারবাস উৎপাদন সক্ষমতা বাড়চ্ছে। ফ্রান্সের টৌলৌজে নতুন এ৩২১ মডেলের উৎপাদন সাইটে সক্ষমতা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ৭৩৭ ম্যাক্স উৎপাদন নিয়ে সংকটে রয়েছে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা বোয়িং। এতে চাহিদা বেড়েছে এয়ারবাসের। খবর: রয়টার্স।

এয়ারবাসের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা মাইকেল স্কোয়েলহর্ন জানিয়েছেন, নতুন এ৩২০ মডেলের চাহিদা নজিরবিহীন বেড়েছে। বিশেষ করে দূরপাল্লার এ৩২১ (এলআর) ও অতিরিক্ত দূরপাল্লার (এক্সএলআর) এর চাহিদা অনেক বেড়েছে।

৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের উড়োজাহাজ সংকটে মার্কিন প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের ক্রয়াদেশ কমে গেছে। সম্প্রতি প্রকাশিত প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, গত দুই দশকের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির ক্রয়াদেশ সর্বনিন্মে পৌঁছেছে। এছাড়া গত বছর তাদের উড়োজাহাজ সরবরাহ হয়েছে ১১ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম।

প্রতিষ্ঠানটির এ সংকটের সুবিধা নিচ্ছে প্রতিযোগী ইউরোপের কোম্পানি এয়ারবাস। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, গত বছর তারা রেকর্ড ৮৬৩টি উড়োজাহাজ সরবরাহ করেছে। এর মধ্যে ৭৩৭ ম্যাক্স উৎপাদন বন্ধের পর এয়ারবাস ৭৬৮টি উড়োজাহাজ সরবরাহ করেছে। 

পরপর বড় দুটি দুর্ঘটনায় মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্সের উড্ডয়ন বন্ধ হয়েছে আগেই। সম্প্রতি ওই মডেলের উড়োজাহাজ উৎপাদন বন্ধ হলে সংকট দেখা দেয়। এ পরিস্থিতিতে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেনিস মুইলেনবার্গকে বরখাস্ত করেছে কোম্পানিটি। তার জায়গায় নতুন নির্বাহী ও প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পান বোর্ড চেয়ারম্যান ডেভিড ক্যালহু।

৭৩৭-ম্যাক্স উড়োজাহাজ সংকটের মধ্যে কোম্পানির সুনাম ফেরানোর চেষ্টায় এ পরিবর্তন জরুরি ছিল বলে জানিয়েছে বোয়িং। তারা বলছে, কোম্পানির আস্থা ফিরিয়ে আনা প্রয়োজন; সে সঙ্গে নিয়ন্ত্রক, ভোক্তাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সবার সঙ্গে সম্পর্ক মেরামত করাও প্রয়োজন।

বিশ্বব্যাপী বোয়িংয়ের এ উড়োজাহাজের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশই ব্যবহার না করে মাটিতে নামিয়ে রাখা হয়। এতে কোম্পানিটির শেয়ার ২০ শতাংশের বেশি পড়ে যাওয়া থেকে শুরু করে সংকট ৭৩৭ ম্যাক্সের উৎপাদনও বন্ধ করে দেওয়া পর্যন্ত গড়িয়েছে।

সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়া ও ইথিওপিয়ায় দুর্ঘটনায় পড়ে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্সের দুটি উড়োজাহাজ। এতে তিন শতাধিক যাত্রীর মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে কারিগরি ত্রুটির অভিযোগ সামনে আসে। ফলে উড়োজাহাজটির আকাশে উড্ডয়ন বন্ধ হয়ে যায়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..