বিশ্ব সংবাদ

চীনের অনুরোধে নতুন শুল্কারোপের সিদ্ধান্ত পেছালেন ট্রাম্প

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ২৫ হাজার কোটি ডলারের চীনা রফতানি পণ্যে নতুন শুল্কারোপ বিলম্বিত করার ইঙ্গিত দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ‘শুভেচ্ছার নিদর্শন’ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এক টুইট বার্তায় তিনি জানিয়েছেন, চীনের অনুরোধে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের কিছু রফতানি পণ্যের ওপর আরোপিত শুল্ক চীন প্রত্যাহার করে নেওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। খবর: সিএনএন, বিবিসি।
ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইট বার্তায় বলেন, আগামী ১ অক্টোবর থেকে পরিকল্পিত পাঁচ শতাংশ শুল্কারোপের ঘোষণা দুই সপ্তাহের জন্য বিলম্ব করা হতে পারে। দুই দেশের মধ্যে চলমান বাণিজ্য উত্তেজনা কমিয়ে নিয়ে আসতে চীন ও যুক্তরাষ্ট্র যখন নতুন করে আলোচনা শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছে, তখন এ ঘোষণা দিলেন ট্রাম্প।
গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা দেয়, চীনের ২৫ হাজার কোটি ডলারের রফতানি পণ্যে আরোপিত শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৩০ শতাংশ করা হবে। গত বুধবার ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, চীনের উপপ্রধানমন্ত্রী লিউ হে তাকে অনুরোধ করেছেন, পরিকল্পিত এ শুল্কারোপের সিদ্ধান্ত স্থগিত করতে। চীনের জাতীয় দিবসের সঙ্গে মিলে যাওয়ায় এ অনুরোধ করেন তিনি।
এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ১৬টি রফতানি পণ্যের তালিকা প্রকাশ করে চীন, যেগুলোকে শুল্কের আওতামুক্ত ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে ক্যানসার প্রতিরোধী ওষুধ ও প্রাণীর খাবার রয়েছে। তবে শূকরের মাংস, সয়াবিন ও গাড়ির মতো বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ যুক্তরাষ্ট্রের রফতানি পণ্যে উচ্চ শুল্ক কার্যকর রয়েছে।
দীর্ঘদিন ধরে বাণিজ্যযুদ্ধে জড়িয়ে রয়েছে বিশ্বের শীর্ষ দুই অর্থনীতি যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। ফলে বিশ্ব অর্থনীতিতে ক্রমেই উদ্বেগ বাড়ছে। বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে বৈশ্বিক বাণিজ্যও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে এ উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায়, যখন চীনের সব রফতানি পণ্যে শুল্কারোপের ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। তবে উভয় পক্ষ আবার আলোচনার টেবিলে ফেরার ঘোষণা দেওয়ায় উত্তেজনা কিছুটা প্রশমিত হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।
এদিকে নতুন করে শুল্কারোপের সিদ্ধান্ত কিছু পিছিয়ে দেওয়ায় তার প্রভাব পড়েছে বিশ্বের পুঁজিবাজারগুলোয়। অধিকাংশ বাজারের সূচক ছিল ঊর্ধ্বমুখী। বৃহস্পতিবারের লেনদেনে চীনের সাংহাই পুঁজিবাজারের সূচক শূন্য দশমিক দুই শতাংশ বেড়ে যায়। এছাড়া জাপানের নিক্কেই সূচক শূন্য দশমিক ৯ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র ডাও জোনস, এস অ্যান্ড পি এবং নাসডাকের সূচকও শূন্য দশমিক ছয় শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়।
এদিকে চলতি বছরের আগস্টে চীনের রফতানি ও আমদানি কমেছে বলে জানায় দেশটি। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্যযুদ্ধ এবং বৈশ্বিক বাজারে চাহিদা হ্রাসে চীনের রফতানি খাত বড় ধাক্কা খাচ্ছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, আগস্টে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় চীনের রফতানি কমেছে এক শতাংশ। গত জুনের পর এটিই সবচেয়ে বড় রফতানি পতন। জুনে কমেছিল এক দশমিক তিন শতাংশ। যদিও রয়টার্সের জরিপে প্রত্যাশা করা হয়েছিল আগস্টে রফতানি বাড়বে, কিন্তু অপ্রত্যাশিতভাবে তা আরও কমেছে। এছাড়া আগামী মাসে রফতানি প্রবৃদ্ধি আরও কমবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।

সর্বশেষ..