বিশ্ব সংবাদ

চীনের পরীক্ষামূলক টিকা নিয়েছেন কিম

শেয়ার বিজ ডেস্ক : উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন এবং তার পরিবারের সদস্যরা কভিড-১৯-এর পরীক্ষামূলক টিকা নিয়েছেন। গতকাল জাপানের দুটি গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের এক বিশ্লেষক দাবি করেন। খবর: রয়টার্স।

ওয়াশিংটনভিত্তিক থিংক ট্যাংক সেন্টার ফর ন্যাশনাল ইন্টারেস্টের উত্তর কোরিয়া বিষয়ক বিশেষজ্ঞ হ্যারি কাজিয়ানিস জানিয়েছেন, এরই মধ্যে চীনের পাঠানো ওই টিকা গ্রহণ করেছেন কিম এবং উত্তর কোরিয়ার বেশ কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তা। তবে এ ভ্যাকসিন কোন কোম্পানির এবং এটি নিরাপদ, এমন প্রমাণ পাওয়া গেছে কি না সে বিষয়টি এখনও নিশ্চিত নয়।

যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানী পিটার জে হোতেজের বরাত দিয়ে হ্যারি বলেন, চীনে কমপক্ষে তিনটি কোম্পানি করোনার টিকা নিয়ে কাজ করছে। এগুলো হচ্ছে সিনোভ্যাক বায়োটেক লিমিটেড, ক্যানসিনোবায়ো এবং সিনোফ্রাম গ্রুপ।

সম্প্রতি সিনোফ্রাম কোম্পানি দাবি করেছে, তাদের তৈরি করোনার সম্ভাব্য ভ্যাকসিন এরই মধ্যে চীনের প্রায় ১০ লাখ মানুষের ওপর প্রয়োগ করা হয়েছে। তবে এ তিনটি কোম্পানির কেউই এখন পর্যন্ত প্রকাশ্যে তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালের ঘোষণা দেয়নি।

অনেক বিশেষজ্ঞই সন্দেহ প্রকাশ করেছেন যে, কিম জং উনকেও হয়তো পরীক্ষামূলক কোনো ভ্যাকসিনই প্রদান করা হয়েছে। সংক্রামক রোগের বিশেষজ্ঞ চই জুং হান বলেন, যদিও এখনও চীনের কোনো ভ্যাকসিন অনুমোদন পায়নি, তবে কোন ভ্যাকসিন কতটা নিরাপদ তা না জেনেই সেটা গ্রহণ করবেন না কিম। ২০১২ সালে উত্তর কোরিয়া থেকে দক্ষিণ কোরিয়ায় আশ্রয় নেন এই বিশেষজ্ঞ।

পূর্ব এশিয়াভিত্তিক বিশ্লেষক মার্ক বেরি বলেন, বেইজিংয়ের মাধ্যমে সরবরাহ করা কার্যকর ইউরোপিয়ান ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে পারেন কিম। তিনি বলেন, ‘এক্ষেত্রে অনেক বড় ঝুঁকি থাকতে পারে, কিন্তু কিম হয়তো চীনের তৈরি ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম পেয়ে বেশ খুশি।’

গত ডিসেম্বরে চীনে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। তার পর থেকে ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে এই ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। তবে চীনের সঙ্গে সীমান্ত থাকার পরও প্রথম থেকে দেশকে করোনাশূন্য বলে দাবি করে আসছেন কিম।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..